এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অযোধ্যা রায় কি এবার থমকে যাবে? বড়সড় পদক্ষেপ নিল মুসলিম ল বোর্ড! জানুন বিস্তারিত

অযোধ্যা রায় কি এবার থমকে যাবে? বড়সড় পদক্ষেপ নিল মুসলিম ল বোর্ড! জানুন বিস্তারিত

দীর্ঘ প্রতীক্ষিত অযোধ্যা মামলার রায় কিছুদিন আগেই জানিয়ে দিয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। তবে এই রায়ের পর কোনো সংগঠনের তরফে কোনও আপত্তি জানানো হবে কিনা, তা নিয়ে তৈরি হয়েছিল জল্পনা। যেখানে গত 9 নভেম্বর দেশের সুপ্রিম কোর্টের তৎকালীন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এই রায় দিতে গিয়ে জানিয়েছিলেন, বিতর্কিত 2.77 একর জমির ওপর রামমন্দির তৈরি হবে।

পাশাপাশি মুসলিম ওয়াকফ বোর্ডকে মসজিদ তৈরির জন্য আলাদা পাঁচ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় সরকারকে। তবে প্রথম থেকে সেই রায়ের ব্যাপারে কোনো সংগঠনের তরফে কাউকে বিরোধিতা করতে দেখা না গেলেও, এবার অবশেষে বিরোধিতা প্রকাশ্যে চলে এল। অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে কোনো আবেদন জানানো হবে না বলে মুসলিম ওয়াকফ বোর্ড আগেভাগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিন্তু শীর্ষ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দাখিল করে রীতিমতো অস্বস্তি বাড়িয়ে দিল জামায়েত-উলেমা-ই-হিন্দ। যার ফলে এখন নানা মহলে তৈরি হয়েছে জল্পনা। অনেকে বলছেন, মুসলিমদের এই সংগঠন অযোধ্যা মামলার এই রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দাখিল করায়, তাহলে কি বহুপ্রতীক্ষিত অযোধ্যা মামলার রায় আবার থমকে যাবে?

আবার কি নতুন করে রায়দান হবে? অনেকে বলছেন, কি হবে, তা ভবিষ্যৎ বলবে। তবে অযোধ্যা মামলার রায় বেরোনোর পর এই প্রথম কোনো সংগঠন রিভিউ পিটিশন দাখিল করায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জামায়েত উলেমা-ই-হিন্দের প্রধান মৌলানা আরশাদ মাদানি অনেক আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, মুসলিমদের একটা বড় অংশ অযোধ্যা মামলার এই রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন জানাতে ইচ্ছুক।

যেখানে তিনি বলেন, “রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দাখিল করার অধিকার আদালতই আমাদের দিয়েছে। সেটা আমরা প্রয়োগ করব।” তবে এতদিন এই ব্যাপারে তারা কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় হয়ত বা অযোধ্যা মামলার এই রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে আর কোনো রিভিউ পিটিশন পড়বে না বলে অনেকে আশ্বস্ত হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মুসলিমদের এই সংগঠন রিভিউ পিটিশন দাখিল করায় অযোধ্যা মামলার রায়ের মোড় কি নেবে, সেদিকেই তাকিয়ে গোটা দেশবাসী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!