এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আজ কি দিল্লিতে মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূলের চার-চারটি উইকেটের পতন? জল্পনা তুঙ্গে

আজ কি দিল্লিতে মুকুল রায়ের হাত ধরে তৃণমূলের চার-চারটি উইকেটের পতন? জল্পনা তুঙ্গে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ – একদা রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের অঘোষিত দুনম্বর নেতা মুকুল রায় বিজেপিতে যোগদান করেই ঘোষণা করেছিলেন – তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন আসলে ‘উইয়ের বাসা’, একটু নাড়া দিলেই নাকি ঝুরঝুর করে ভেঙে পড়বে! যদিও মুকুলবাবুর এহেন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা দিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসও। তৃণমূল সমর্থকদের বক্তব্য ছিল, মুকুল রায়কে নাকি রাজনৈতিকভাবে জমি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাঁর ছত্রছায়া থেকে বেরিয়ে রাজনৈতিকভাবে কিছুই করতে পারবেন না, অকালে ঝরে যাবে মুকুল!

জবাবে, বঙ্গ-রাজনীতির ‘চাণক্য’ শুধু মুচকি হেসেছিলেন। আর তারপর যত নির্বাচন এগিয়ে এসেছে – একে একে কামাল দেখতে শুরু করেছেন বঙ্গ রাজনীতির অন্যতম ‘মাস্টারমাইন্ড’ মুকুল রায়। তাঁর হাত ধরে একে একে গেরুয়া শিবিরে পদার্পন করেছেন সৌমিত্র খাঁ, মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়, শঙ্কুদেব পণ্ডা, বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, নিশীথ প্রামানিক, ভারতী ঘোষের মত একের পর এক হেভিওয়েট। যদিও, সেই দলবদলকেও ‘খাটো’ করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তৃণমূল সমর্থকরা। কখনও ‘আবর্জনা’, তো কখনও ‘চোরের দল’ বলে কটাক্ষ ছুঁড়ে দিয়ে গেরুয়া শিবিরের মনোবল ভাঙার আপ্রাণ চেষ্টায় ঘাসফুল শিবির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কিন্তু, মুকুলবাবু সেসব কথায় পাত্তা না দিয়ে নিজের ‘কাজে’ অবিচল। তাঁর নিজের রাজনৈতিক পরিচয় ও তাঁর হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করা নবাগতদের সাহায্যে তৃণমূল কংগ্রেসে বড়সড় ভাঙন ধরাতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে চলেছেন। তাঁর অনুগামীদের দাবি, শাসকদলে বর্তমানে সুনির্দিষ্ট দুই ব্যক্তির ইচ্ছে-অনিচ্ছেয় ওঠ-বোস না করলে, রাজনৈতিকভাবে শেষ করে দেওয়ার প্রচেষ্টা চলছে। ফলে, রাজনীতির ময়দানে জীবনের অনেকগুলো বছর কাটিয়ে দেওয়া মানুষগুলো ক্রমশ হাঁফিয়ে উঠছেন। আর তাই, এখন আর নাকি মুকুলবাবুকে যোগাযোগ করতে হয় না – উল্টে মুকুলবাবুর সঙ্গেই গোপনে যোগাযোগ রেখে চলেছেন শাসকদলের একাধিক হেভিওয়েট নেতা-নেত্রী।

আর সেই যোগাযোগের সূত্রেই, এবার বড়সড় দলবদল হতে চলেছে। দিল্লি থেকে মুকুলবাবুর ঘনিষ্ঠ এক যুবনেতা দাবি, এবার একসাথে চার-চারটি উইকেট পড়তে চলেছে শাসকদলের। এর মধ্যে রয়েছেন উত্তরবঙ্গের এক যুবনেতা তথা সাংসদ, দক্ষিণবঙ্গের এক অধ্যাপক সাংসদ, রাজ্যের এক প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বর্তমান বিধায়ক ও ওই প্রাক্তন মন্ত্রীর এক অধ্যাপিকা বান্ধবী, যিনি শাসকদলের অধ্যাপক সংগঠনের অন্যতম শীর্ষপদে ছিলেন একদা। ওই যুবনেতার আরও দাবি, এই যোগদান সংক্রান্ত আলোচনা সম্পূর্ণ – তবে এই যোগদান আজ নাও হতে পারে। কেননা আগামী সোমবার অমিত শাহ বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন – তাই স্বয়ং অমিত শাহের হাত থেকে দলীয় পতাকা নিয়ে যোগদানের একটা সম্ভবনা তৈরী হয়েছে। সেক্ষেত্রে, এই যোগদান হতে পারে আগামী সোমবার – নাহলে আজই হয়ে যাবে এই যোগদান।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!