এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > সব ইস্যুতেই ছুটছেন হেভিওয়েট তৃণমূল মন্ত্রী! এবার কি মেয়র দাবিদার তিনিই? জল্পনা দলের অন্দরে

সব ইস্যুতেই ছুটছেন হেভিওয়েট তৃণমূল মন্ত্রী! এবার কি মেয়র দাবিদার তিনিই? জল্পনা দলের অন্দরে

Priyo Bandhu Media


যে কোনো নির্বাচনেই কোনো একটি ব্যক্তিকে মুখ করে লড়াই করা হয়। 2011 সালের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ করেই তৃণমূল কংগ্রেস লড়াই করেছিল। যার মাধ্যমে রাজ্যের ক্ষমতা দখল করেছে তারা। পরবর্তীতে প্রায় সব নির্বাচনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস সাফল্য পেয়েছে। তবে যে কোনো নির্বাচনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ব্যবহার করা হলেও স্থানীয় স্তরের নির্বাচনে দলের জেলা নেতৃত্বের মুখ যে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সেদিক থেকে এবার শিলিগুড়ি শহরের পৌর নির্বাচনের আগে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবকে মুখ করেই কি লড়াই করতে শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস! এখন এই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে বিশেষজ্ঞদের মনে। বস্তুত, রাজ্যের ক্ষমতা দখল করলেও শিলিগুড়ি পৌরসভা দখল করতে পারেনি তৃণমূল কংগ্রেস। এখনও সেখানে নিজেদের ক্ষমতা ধরে রেখেছে বামফ্রন্ট। তবে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কিছুটা পর্যদুস্ত হওয়ার পর এখন সেই শিলিগুড়ি পৌরসভা নির্বাচনের আগে সব জায়গায় ছুটে বেড়াতে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবকে।

“দিদিকে বলো” কর্মসূচির মাধ্যমে শিলিগুড়ি পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ শুনতে শুরু করেছেন তিনি। পাশাপাশি প্রাতঃভ্রমণ থেকে শুরু করে, ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে এনআরসির বিরুদ্ধে সভা, সাধারণ মানুষের বিপদে ঝাপিয়ে পড়া সহ শিলিগুড়ি পৌরসভার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ময়দানে নামতে দেখা যাচ্ছে গৌতমবাবুকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিছুদিন আগে অনেকটাই গুরুত্ব হারিয়ে ফেলেছিলেন এই গৌতম দেব।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

মন্ত্রীপদ থাকলেও জেলা সভাপতি পদ তার কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে এই শিলিগুড়ি পৌরসভার বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকারকে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার পরে গৌতম দেবের ভিত্তি হয়ত বা শেষের মুখে চলে যাচ্ছে বলে মনে করেছিল একাংশ। কিন্তু শিলিগুড়ি পৌরসভা নির্বাচনের আগে যেভাবে বিভিন্ন জায়গায় ছুটে বেড়াতে দেখা যাচ্ছে সেই গৌতম দেবকে, তাতে তিনি তৃণমূলের শিলিগুড়ি পৌরসভার মেয়র পদপ্রার্থী বলে মনে করছেন একাংশ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তাহলে কি বামফ্রন্টের অশোক ভট্টাচার্যকে বধ করতে তৃণমূলের হাতিয়ার গৌতম দেব?

এদিন এই প্রসঙ্গে শিলিগুড়ি 2 নম্বর টাউন তৃণমূলের সভাপতি বেদব্রত দত্ত বলেন, “দার্জিলিং জেলায় গৌতমদা দলের অভিভাবক। অগ্রজ এবং শীর্ষ নেতা। তবে পুরভোটে কি হবে, তা এখনই বলা সম্ভব নয়। ভোটযুদ্ধ নিয়ে দলের রাজ্য কমিটি আমাদের যেভাবে চালাবে, আমরা সেইভাবে চলব।” অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে দার্জিলিং জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা শিলিগুড়ি পৌরসভার বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার বলেন, “শিলিগুড়ি শহরকে পাপমুক্ত করতে অর্থাৎ সিপিএমকে হঠাতে আমরা প্রস্তুতি শুরু করেছি।”

তাঁর মতে, “এক্ষেত্রে আমাদের মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এই ব্যাপারে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়।” তবে বেদব্রতবাবু থেকে শুরু করে রঞ্জনবাবু যে যে কথাই বলুন না কেন, যেভাবে গৌতম দেবকে সমস্ত ব্যাপারে সক্রিয় হতে দেখা যাচ্ছে, তাতে পুরভোটে যে তিনিই দলের প্রধান মুখ হতে চলেছেন, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল। তবে শেষ পর্যন্ত রাজনৈতিক মহলের এই সম্ভাবনার সঙ্গে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের সিদ্ধান্তের মিল খায় কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!