এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মন্ত্রীত্ত্বের পর আজ যাচ্ছে মেয়র পদও – স্থলাভিষিক্ত হবেন কে? বাড়ছে জল্পনা

মন্ত্রীত্ত্বের পর আজ যাচ্ছে মেয়র পদও – স্থলাভিষিক্ত হবেন কে? বাড়ছে জল্পনা

গতকাল বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রীর ধমক খেয়েই মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করেন রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়। কিছুদিন আগে থেকেই দলের অন্দরে তাঁর ‘ডানা’ ছাঁটার প্রক্রিয়া শুরু করেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথমে তাঁর হাত থেকে পরিবেশ মন্ত্রকের দায়িত্ত্ব নিয়ে তা দেওয়া হয় শুভেন্দু অধিকারীকে।

এরপর শোভনবাবুকে সড়িয়ে দেওয়া হয় দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলা সভাপতির পদ থেকেও। তাঁর স্থলাভিষিক্ত করা হয় রাজ্যসভার সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তীকে। আর গতকাল তো, বিধানসভার ধমকের পর মুখ্যমন্ত্রীর আপ্ত সহায়কের কাছে শোভনবাবু জমা দেন পদত্যাগপত্র। যদিও, বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অস্বীকার করেন পদত্যাগের কথা। তবে এরপরেই নাকি স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী ফোন করে তাঁকে পদত্যাগ করতে বলেন।

তাঁর ছেড়ে যাওয়া দুই মন্ত্রকের দায়িত্ত্ব দ্রুত বুঝে নিতে বলা হয় মন্ত্রীসভার গুরুত্ত্বপূর্ন সদস্য ফিরহাদ হাকিমকে। তবে মন্ত্রীত্ত্ব যাওয়ার পর শোভনবাবুকে এবার ছাড়তে হচ্ছে কলকাতার মেয়র পদের দায়িত্ত্বও বলে সূত্রের খবর। আজই, তাঁকে পদত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে দলীয় সূত্রের খবর। আর আজ যদি শোভনবাবু মেয়র পদ ছাড়েন – তাহলে তাঁর স্থলাভিষিক্ত হবেন কে? তাই নিয়ে শুরু হয়েছে চূড়ান্ত জল্পনা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, আপাতত নতুন মেয়র নির্বাচিত হওয়া না পর্যন্ত সমস্ত কাজের দেখভাল করবেন কলকাতা পুরসভার কমিশনার খলিল আহমেদ। তবে মেয়র হওয়ার দৌড়ে আপাতত ভেসে উঠছে তিন হেভিওয়েতের নাম। এঁরা হলেন – ফিরহাদ হাকিম, দেবাশীষ কুমার ও অতীন ঘোষ। এঁদের মধ্যে সবথেকে এগিয়ে ফিরহাদ হাকিম থাকলেও – তাঁর বিরুদ্ধে যাচ্ছে মন্ত্রীত্ত্বের চাপ।

এমনিতেই, নিজের মন্ত্রকের দায়িত্ত্বের পাশাপাশি গতকাল থেকে তাঁকে শোভনবাবুর ছেড়ে যাওয়া দুই মন্ত্রকের গুরুত্ত্ব সামলাতে হচ্ছে। তাছাড়া, দলীয় সূত্রে জানান যাচ্ছে, এমন কেউ দায়িত্ত্ব পেতে পারেন যিনি কলকাতা পুরসভাকে হাতের তালুর মত চেনেন। সেক্ষেত্রে, দীর্ঘদিন ধরে যাঁরা কাউন্সিলর তাঁদের কাউকেই হয়ত বসানো হতে পারে এই পদে।

অন্যদিকে, দলেরই আরেকটি অংশের মত শোভনবাবুকে নিয়ে বিগত কয়েকমাসে যে বিতর্ক হয়েছে তা দলকে রীতিমত অস্বস্তিতে ফেলেছে। আর তাই, রাজনীতির বাইরের কোন হেভিওয়েট স্বচ্ছ বিদ্বজনকেও বসানো হতে পারে মেয়র পদে। সবমিলিয়ে বেশ জমজমাট কলকাতা মেয়র পদ নিয়ে লড়াই – তবে যথাবিহিত, এই নিয়ে শেষ সিদ্ধান্ত নেবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!