এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > পুরনো সভাপতিই থাকছেন নাকি ৩ সাধারণ সম্পাদকের কেউ সভাপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন? জল্পনা বিজেপিতে

পুরনো সভাপতিই থাকছেন নাকি ৩ সাধারণ সম্পাদকের কেউ সভাপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন? জল্পনা বিজেপিতে

Priyo Bandhu Media


লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি সাফল্য পাওয়ার পর তারা এখন নজর দিয়েছে জেলায় জেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার দিকে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের 23 টি সাংগঠনিক জেলার সভাপতির নাম ঘোষণা করেছে বঙ্গ বিজেপি। তবে আশ্চর্যজনকভাবে সেই তেইশটি জেলার মধ্যে নাম নেই বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার। ফলে সেখানে সভাপতি পদে বদল হবে, নাকি পুরনো সভাপতিই থাকবেন!

তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ব্যাপক জল্পনা। বস্তুত, এই বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলায় 1790 টি বুথ এবং 25 টি মন্ডল রয়েছে। ইতিমধ্যেই বিজেপি তাদের বুথ এবং মন্ডল নির্বাচনগুলো সম্পন্ন করেছে। তাই এবার পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সেই বিষ্ণুপুরে দলের জেলা সভাপতি কে হবেন, তা এখনও ঘোষণা না হওয়ায় ব্যাপক গুঞ্জন তৈরি হয়েছে দলের অন্দরে। ফলে নতুন জেলা সভাপতির নাম প্রকাশ্যে না আসায় নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র জল্পনা তৈরি হয়েছে।

তবে, এখানে নতুন জেলা সভাপতি হয়েছেন অমর শাখা বলে জানিয়েছেন বিজেপির প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়। যা নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। প্রকাশ্যে জেলা সভাপতির নাম না আসলেও দলের শীর্ষস্থানীয় নেতা প্রতাপবাবু অমলবাবুর নাম জেলা সভাপতি হিসেবে ঠিক হয়েছে বলে জেলা সভাপতি কে হয়েছেন, তা বুঝতে পারছেন না বিজেপির নেতা কর্মীরা। এদিন এই প্রসঙ্গে স্টেট রিটার্নিং অফিসার প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বিষ্ণুপুরের জেলা সভাপতি হিসেবে অমর শাখার নাম স্থির করা হয়েছে।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তিনি আরও জানান, “শুক্রবারের তালিকাতেই তার নাম থাকার কথা। আমি শিলিগুড়িতে রয়েছি। ফিরে গিয়ে বিষয়টা দেখব।” তবে রাজ্য নেতৃত্ব এই কথা বললেও, জেলার অনেকে বলছেন, বিদায়ী সভাপতি স্বপন ঘোষই পুনরায় এখানে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হবেন। আবার একাংশের মতে, সাধারণ সম্পাদক পদে যে 3 জন রয়েছেন, তাদের মধ্যে কেউ পরবর্তী জেলা সভাপতি হতে পারেন।

জানা গেছে, এই সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে জেলা সভাপতির পদে দৌড়ে রয়েছেন অমর শাখা, তাপস বসু এবং অশোক ডাকুয়া। তবে অমরবাবুর নাম প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলায় পরবর্তী সভাপতি হিসেবে শুনতে পাওয়ায় এদিন এই প্রসঙ্গে সেই অমর শাখা বলেন, “আমি দীর্ঘদিন ধরে দল করছি। তাই জেলার প্রতিটি মন্ডল এবং বুথস্তরের কর্মীদের সঙ্গে আমার নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। তাই তারা নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমার পক্ষেই মতামত দেবেন।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে বিদায়ী সভাপতি স্বপন ঘোষকেই সভাপতি করার পক্ষে সওয়াল করতে দেখা গেছে অশোক ডাকুয়াকে। এদিকে এই ব্যাপারে তাপস বসু বলেন, “প্রত্যেক মন্ডল সভাপতিদের কাছ থেকে তিনটি করে নাম দেওয়া হয়েছে। তাদের মতামতের উপর ভিত্তি করে জেলা সভাপতি নির্বাচন হয়েছে। অন্যান্য জায়গায় তালিকা প্রকাশ হলেও বিষ্ণুপুরে এখনও হয়নি। তাই কে সভাপতি হবেন, তা জানার জন্য উৎকণ্ঠায় রয়েছি। তবে দল যাকেই দায়িত্ব দেবে, আমরা তাকেই মানতে বাধ্য।”

কিন্তু এই ব্যাপারে কি বলছেন বিদায়ী জেলা সভাপতি স্বপন ঘোষ! এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি 2013 সাল থেকে বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার সর্বোচ্চ পদে রয়েছি। বিষ্ণুপুর লোকসভায় দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে কঠোর পরিশ্রম করেছি। পুনরায় দায়িত্ব দিলে দল পরিচালনা করতে আমার কোনো অসুবিধা হবে না। তবে এখনও নাম প্রকাশ না হওয়ায় দলীয় সিদ্ধান্তের কথা জানা যাচ্ছে না।” সব মিলিয়ে এবার বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলায় পরবর্তী সভাপতি কে হন, তার দিকেই তাকিয়ে রয়েছেন বিজেপির সকল নেতা-কর্মীরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!