এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অযোধ্যা মামলার রায় কি মহারাষ্ট্র- হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের আগেই? তীব্র হচ্ছে জল্পনা!

অযোধ্যা মামলার রায় কি মহারাষ্ট্র- হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের আগেই? তীব্র হচ্ছে জল্পনা!

অযোধ্যা মামলা নিয়ে এখন টানটান উত্তেজনা সব শিবিরের মধ্যেই। আর এবার জল্পনা বাড়িয়ে অযোধ্যা মামলা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত জানাল দেশের শীর্ষ আদালত। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি এস এ ববদে, বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচুড়, বিচারপতি অশোক ভূষণ ও বিচারপতি এস এ নাজিরের ডিভিশন বেঁচে এই মামলা শেষ হওয়ার কথা ছিল আগামী ১৮ ই অক্টোবর। আর তারপরে রায়দান করতে হত আগামী ১৭ ই নভেম্বরের মধ্যে।

কিন্তু এদিন সুপ্রিম কোর্টের তরফে সব পক্ষকে জানানো হয়েছে, একদিন আগেই এই মামলার সব শুনানি শেষ করতে। সেই সঙ্গে সব পক্ষকে চূড়ান্ত নথিও জমা করে দিতে হবে ওই দিনের মধ্যেই। টানা দেড় মাস ধরে শুনানি চলার পর, একেবারে শেষলগ্নে এসে হঠাৎ করে শুনানির দিন ১ দিন কমিয়ে দেওয়া নিয়ে আইনি মহলে শুরু হয়েছে তীব্র জল্পনা! আইনি মহলে কান পাতলেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, ১৭ ই নভেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা নয় – বরং তার অনেক আগেই এই সংবদেনশীল মামলার রায় দেওয়া হতে পারে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এমনকি, অনেকে একধাপ এগিয়ে ভাবছেন, এই মামলার শুনানি ১৭ তারিখ শেষ হওয়ার পরপরই, অর্থাৎ মহারাষ্ট্র-হরিয়ানার নির্বাচন হওয়ার আগেই রায় দেওয়া হতে পারে। আর তাই, এই মামলার শুনানি একদিন আগেই শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, রঞ্জন গগৈ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির আসনে বসার পর থেকেই একের পর এক ঐতিহাসিক মামলার রায়দান করেছেন। আগামী ১৭ ই নভেম্বর তিনি অবসর নিতে চলেছেন – ফলে, আশা করা যাচ্ছে, এই ঐতিহাসিক মামলার রায় দান করেই তিনি অবসর নেবেন।

আর, সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যা মামলার শুনানি ও নথি জমা দিয়ে ‘ফাইনাল ডেডলাইন’ সামনে আসতেই – এবার এই মামলার রায় নিয়ে চূড়ান্ত জল্পনা শুরু হয়েছে সব মহলে। সুপ্রিম কোর্ট কি এখানে মন্দির নির্মাণের নির্দেশ দেবে? নাকি মন্দির-মসজিদ ভাগাভাগি করে থাকবে? নাকি মন্দিরের দাবি ধূলিস্যাৎ করে সেখানে মসজিদের দখলই শেষ পর্যন্ত থাকবে? রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশের শীর্ষ আদালত যে রায়ই দিক না কেন – আগামীদিনে এই নিয়ে রাজনীতির ময়দানে বড়সড় জলঘোলা হতে চলেছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!