এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নিরাপত্তা নিয়ে প্রবল দ্বন্দ্বে কমিশন-রাজ্য সরকার, আজ কি হবে আদালতে?

নিরাপত্তা নিয়ে প্রবল দ্বন্দ্বে কমিশন-রাজ্য সরকার, আজ কি হবে আদালতে?

বিজেপি প্রভাবিত সাকারী কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিস শীলের করা জনস্বার্থ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আজ কলকাতা হাইকোর্টে প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে একটি মামলার শুনানি আছে। দেবাশিসবাবু আদালতের কাছে আর্জি জানিয়েছেন, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ভোট করতে যাওয়া সরকারি কর্মচারীরা প্রবল আতঙ্কিত, তাই তাঁদের ও সাধারনের মানুষের সুরক্ষার জন্য আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন কেন্দ্রিয়বাহিনীর তত্বাবধানে করা হোক। দেবাশিসবাবুর এই দাবি উড়িয়ে দিয়ে ডিআইজি অনুজ শর্মা দাবি করেন, রাজ্যের হাতে নিরাপত্তা দেওয়ার মত পর্যাপ্ত বাহিনী আছে। আদালত এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আজ হলফনামা দিয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা ঠিক রাখার জন্য কোথায় কি বাহিনী দেওয়া হচ্ছে তা জানাতে নির্দেশ দিয়েছে। আর তাই গতকাল নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের মধ্যে এক বৈঠক হয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

সেই বৈঠকে, প্রশাসন নির্বাচন কমিশনকে আশ্বস্ত করে, নির্বাচনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা থাকবে। কিন্তু তাতে বিন্দুমাত্র আশ্বস্ত নয় কমিশন। কেন? কারন খুঁজতে চোখ কপালে ওঠার অবস্থা! এমনিতে প্রশাসনের হিসাবে রাজ্যের বুথ চিত্র অনেকটা এইরকম –

অতি স্পর্শকাতর বুথ – ২৪ হাজার – ২ জন সশস্ত্র ও ২ জন লাঠিধারী প্রতিবুথে
স্পর্শকাতর বুথ – ১৪ হাজার – ১ জন সশস্ত্র ও ২ জন লাঠিধারী প্রতিবুথে
সাধারণ বুথ – ২১ হাজার – ১ জন সশস্ত্র ও ১ জন লাঠিধারী প্রতিবুথে

অর্থাৎ মোট ৫৯ হাজার বুথে ৮৩ হাজার সশস্ত্র ও ৯৩ হাজার লাঠিধারী পুলিশ লাগার কথা। কিন্তু এতো গেল রাজ্যের হিসেব, কিন্তু কমিশনের হিসেব? সূত্রের খবর কমিশনের হিসেবে এখনো কিছু করাই হয়ে ওঠে নি! কেননা, বুথের চরিত্র সম্পর্কে সাম্প্রতিক এবং পূর্ণাঙ্গ তথ্য এখনও সব জেলা থেকে কমিশনের হাতে আসেনি। অন্যদিকে প্রশাসনের দাবি, কমিশনের তরফে এই বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনও নির্দেশিকাই নেই! সোজা কথায় রাজ্যের বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে অতি স্পর্শকাতর, স্পর্শকাতর এবং সাধারণ বুথ চিহ্নিতকরনের কাজই সম্পূর্ণ নয়! ফলে বুথপ্রতি নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েনের যে তথ্য আদালত জমা দিতে বলেছে তা কি করে দেবে আজ কমিশন বা প্রশাসন? আর তা যদি নাহয় তাহলে কিভাবে ১৪ মে ভোটগ্রহণ – উত্তরের জন্য বঙ্গবাসী তাকিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দিকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!