এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ডিএ মামলার রায় আগামীকালই? নাকি বিশ বাঁও জলে? চরম ফয়সালা আজ কলকাতা হাইকোর্টে

ডিএ মামলার রায় আগামীকালই? নাকি বিশ বাঁও জলে? চরম ফয়সালা আজ কলকাতা হাইকোর্টে

রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারী, শিক্ষক ও সরকারি অনুদান প্রাপ্ত কর্মীদের চোখ আজ থাকবে কলকাতা হাইকোর্টে দিকে। কেননা, সেখানেই আজ নির্ধারিত হতে চলেছে ডিএ মামলার ভবিষ্যৎ। প্রধান বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত ও বিচারপতি শেখর ববি শরাফের ডিভিশন বেঞ্চ আজ সিদ্ধান্ত নেবে – ডিএ মামলার রায় আগামীকালই নির্ধারিত হয়ে যাবে নাকি তা আপাতত চলে যাবে হিমঘরে!

সরকারি কর্মচারী সংগঠন কনফেডারেশন অফ স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে রাজ্য সরকারকে তার ঘোষিত ‘ডিএ – দয়ার দান’ বক্তব্য থেকে পিছিয়ে আসতে হয়েছে। কেননা কলকাতা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দিয়েছে ডিএ সরকারি কর্মচারীদের সাংবিধানিক রায়ের মধ্যে পরে। কিন্তু, সেই ডিএর হার কি হবে বা তা বছরে কবার করে দেওয়া হবে সেই সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কলকাতা হাইকোর্ট স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটকে নির্দেশ দেয়।

এরপরে স্যাটের মামলাতেও মামলাকারী ও সরকারি আইনজীবীদের সওয়াল-জবাব শেষ। এমনকি মামলাকারীরা প্রয়োজনীয় নথিও জমা দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু রাজ্য সরকারি আইনজীবীরা জানিয়েছেন যে তাঁদের সওয়ালের পরিপ্রেক্ষিতে যে সব নথি জমা দেওয়ার কথা তা ‘মিসপ্লেসড’ হয়ে গেছে – আর, তার জন্য তাঁদের অতিরিক্ত সময় চায়। কিন্তু স্যাটের বিচারপতিরা স্পষ্ট জানিয়ে দেন – আদালতের নির্দেশে আর অতিরিক্ত সময় দেওয়া সম্ভব নয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অনেক আইনি মারপ্যাঁচের পর – আগামীকাল এই মামলার নিস্পত্তি হতে পারে স্যাটে। কেননা, স্যাটের বিচারপতিরা স্পষ্ট জানিয়েছেন – আগামীকালের মধ্যে যদি রাজ্য সরকারি আইনজীবীরা তাঁদের পক্ষে কলকাতা হাইকোর্ট থেকে রিভিউ পিটিশনের অর্ডার তাঁদের পক্ষে না আনতে পারেন, তাহলে স্যাট ডিএ মামলার রায় ঘোষণা করে দেবে। এদিকে, আদালতে রাজ্য সরকার প্রথমে ‘টেকনিক্যালি ভুলে ভরা’ রিভিউ পিটিশন জমা দিলে তা শুনানির দিন বাতিল হয়ে যায়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্ট রাজ্য সরকারকে গত ১৪ ই ডিসেম্বর সঠিক রিভিউ পিটিশন জমা দেবার নির্দেশ দেয়। সেইমত, রাজ্য সরকারের রিভিউ পিটিশন নির্দিষ্ট সময়েই জমা পড়েছে বলে জানা গেছে। আর আজ সেই মামলার শুনানি হতে চলেছে। এখন কলকাতা হাইকোর্ট যদি রাজ্য সরকারের আবেদন মেনে নেয়, তাহলে কিন্তু ডিএ মামলার রায়দান পিছিয়ে যেতে বাধ্য। তবে, জল্পনা কলকাতা হাইকোর্ট হয়ত বা এই রিভিউ পিটিশন মেনে নেবে না।

কেননা, রাজ্য সরকারি আইনজীবীরা জানিয়েছেন ‘ফাইল মিসপ্লেসড’ – এর আগেই মামলাকারীদের আইনজীবী সর্দার আমজাদ আলি প্রশ্ন তুলেছিলেন, যে ফাইল হারিয়ে গেছে তা খুঁজে আনতে অতিরিক্ত সময় দিয়ে লাভ কি? তাহলে কি সরকারি আইনজীবীরা জানেন কিভাবে সেই হারানো ফাইল খুঁজে পাওয়া যাবে? বা কবের মধ্যে সেই হারানো ফাইল খুঁজে পাওয়া যাবে? যে সওয়াল মেনে নিয়েছিলেন স্যাটের বিচারপতিরা।

আর, তাই ডিএ মামলা নিয়ে আজ দিনভর চলবে টানটান উত্তেজনা, চূড়ান্ত স্নায়ুর যুদ্ধ! দিনের শেষে রাজ্য সরকার নাকি রাজ্য সরকারি কর্মচারী – কার মুখে হাসি ফোটাবে কলকাতা হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত সেদিকেই তাকিয়ে রাজ্যবাসী। আজ, আদালতের সিদ্ধান্ত মামলাকারীদের পক্ষে গেলে ডিএ মামলা নিয়ে রায়দান আগামীকালই হয়ে যেতে পারে। অন্যথায়, আপাতত হিমঘরে ঢুকে যাবে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএর ভবিষ্যৎ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!