এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের জেরে বাতিল হয়ে গেল WBCS-এর মত গুরুত্ত্বপূর্ন পরীক্ষা!

প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের জেরে বাতিল হয়ে গেল WBCS-এর মত গুরুত্ত্বপূর্ন পরীক্ষা!

প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের কবলে এবার  WBCS এর মতো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা। বাতিল হয়ে গেলো এদিনের ওয়েস্ট বেঙ্গল সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার ২০১৮ সালের মেইন ঐচ্ছিক বিষয় উর্দুর লিখিত পরীক্ষা। আগামী ১ সেপ্টেম্বর ওই পরীক্ষা ফের নেওয়া হবে জানানো হয়েছে  পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)-র চেয়ারম্যান দীপঙ্কর দাশগুপ্তের তরফ থেকে। উল্লেখ্য,এদিনের উর্দু পরীক্ষায় ছিল ২৮০ জন পরীক্ষার্থী। প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রে ১০০ করে মোট ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষার সময়সূচি ছিল সকাল ৯টা থেকে ১২ টা এবং দুপুর ১ টা থেকে ৪ টে। কিন্তু কেন বাতিল করতে হল  WBCS এর মতো গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র? আসুন জেনে নেওয়া যাক্।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন পিএসসি ভবনের হলঘরে দুজন এবং বাকি পরীক্ষার্থীরা উল্টোডাঙ্গার একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে বসে পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। প্রথম পত্রের পরীক্ষা শুরু হতেই দেখা গেল ২০১৭ সালের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র হুবহু ছাপা হয়ে চলে এসেছে। বিষয়টি তক্ষুণি নজরে আনা হয় পিএসসি কর্তাদের। পিএসসি ভবনের পরীক্ষা বাতিল করে চেয়ারম্যান ছোটেন উল্টোডাঙ্গা পরীক্ষাকেন্দ্রে। রদ করা হয় সমস্ত পরীক্ষা। তবে পরীক্ষার্থীদেরকে আশ্বস্ত করে এই পরীক্ষার পরবর্তী দিনক্ষণ সমস্তই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তবে কেন হল প্রশ্নপত্র ছাপানো নিয়ে চরম গাফিলতি? কেন এতোজন  WBCS পরীক্ষার্থীকে ভোগান্তির শিকার হতে হল? প্রশ্নের মুখে পিএসসি আধিকারিকরা। গোটা বিষয়টার জন্য দায় পড়তে চলেছে প্রশ্নপত্র ছাপার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার উপর। খবর নিয়ে জানা গেছে সরকারি সংস্থা সরস্বতী প্রেস থেকেই প্রশ্নপত্র ছাপানোর কাজটি করেছিলো। প্রশ্নপত্র বিভ্রাটের বিষয়টি জানিয়ে ইতিমধ্যেই সরস্বতী প্রেস কর্তৃপক্ষের কাছে কৈফিয়ত চেয়েছে পিএসসি। প্রেসের জবাবের পরই পরবর্তী পদক্ষেপে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে কর্মকর্তারা। এমনটাই জানা গিয়েছে পিএসসি সূত্র থেকে।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!