এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সুখবর রাজ্যের শিক্ষকদের জন্য! আগামীমাসেই বাড়তে চলেছে বেতন, মিলবে এরিয়ার – দেখে নিন পুরো হিসাব

সুখবর রাজ্যের শিক্ষকদের জন্য! আগামীমাসেই বাড়তে চলেছে বেতন, মিলবে এরিয়ার – দেখে নিন পুরো হিসাব

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ – গত জুলাই মাস কলকাতার রাজপথ কার্যত উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল শিক্ষক আন্দোলনের আবহে। রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবি ছিল, সরকারি নির্দেশিকা মত নিজেদের চাকরি বাঁচাতে বহু কষ্টকরে তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা কেন্দ্রীয় মানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে বাড়িয়ে নিতে হয়েছিল। অথচ যে নির্দেশিকার ফলে এই শিক্ষাগত যোগ্যতা বাড়াতে হয়েছিল, সেই এনসিটিই নর্ম মেনে তাঁদের বেতন বাড়াচ্ছে না রাজ্য সরকার।

আর এই নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা-আন্দোলন করেও কোনো সদর্থক ফলাফল না মেলায় বিকাশ ভবনের অদূরে উন্নয়ন ভবনের সামনে উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃত্বে আমরণ অনশনে বসেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। প্রথমে সেই আন্দোলনকে গুরুত্ব দিতে চান নি শিক্ষামন্ত্রী বা মুখ্যমন্ত্রী কেউই। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে নাম না করে বলেই দেন, কেন্দ্রীয়হারে বেতন চাইলে কেন্দ্রে চলে যান!

কিন্তু শিক্ষকদের এই নৈতিক দাবীতে আমরণ অনশন রীতিমত ঝড় তুলে দেয় গোটা রাজ্যজুড়েই। গোটা বাংলার সুধীজন ও শিক্ষিত সমাজের সমর্থন থাকে শিক্ষকদের পাশেই। ফলে কিছুটা চাপে পরেই রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী দলীয় এক অধিবেশনে শেষপর্যন্ত ঘোষণা করতে বাধ্য হন, রাজ্যের অর্থনৈতিক কারণে আপাতত শিক্ষকদের সব দাবি মেনে তাঁদের বেতন কেন্দ্রীয় হারে অর্থাৎ পিবি-৪ স্কেলে দেওয়া না গেলেও, তা বাড়িয়ে পিবি-৩ স্কেলে করা হবে। শিক্ষকরাও নমনীয় মনোভাব দেখিয়ে এর পরে অনশন প্রত্যাহার করে নেন।

কিন্তু, এই সংক্রান্ত রাজ্য সরকারের জিও নিয়ে একাধিক সমস্যা দেখা যায়। বিশেষ করে দেখা যায় প্রবীণ শিক্ষকদের ক্ষেত্রে কোনো বেতনই প্রায় বাড়ছে না, অথচ নতুন কাজে যোগ দেওয়া শিক্ষকদের বেতন এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গিয়ে তা প্রবীণ শিক্ষকদের প্রায় সমতুল হয়ে পড়ছে। আর এই সব সমস্যার জন্য গত মাসে বর্ধিত বেতন দিতে পারে নি রাজ্য সরকার। অবশেষে সেই সমস্যার সমাধানে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় গতকাল বিকাশ ভবনে শিক্ষাদপ্তরের প্রায় সমস্ত আধিকারিক ও শিক্ষকদের প্রতিনিধি হিসাবে ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রাইমারি ট্রেন্ড টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের এক বৈঠকে বসেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

সেই বৈঠক থেকে বেরিয়ে ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রাইমারি ট্রেন্ড টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের রাজ্য সভাপতি পিন্টু পাড়ুই জানান, বৈঠক খুবই সদর্থক হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী তাঁদের দাবি খুব গুরুত্ব সহকারে শুনেছেন এবং প্রায় সব দাবিই মেনে নিয়েছেন বা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর মেনে নেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ফলে, নবীন ও প্রবীণ শিক্ষকদের বেতন নিয়ে যে সমস্যা তৈরী হয়েছিল তা মিটে যেতে চলেছে এবং আগামী মাস থেকেই বর্ধিত বেতন এরিয়ার সহ পাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে।

পিন্টুবাবুর কথা অনুযায়ী কি হতে চলেছে সিনিয়র শিক্ষকদের ক্ষেত্রে একনজরে দেখে নেওয়া যাক –
বর্তমানে কি পাচ্ছেন –
ধরা যাক পে-ব্যান্ড – ৯,০২০
গ্রেড-পে – ২,৬০০
অর্থাৎ, বেসিক পে – ৯,০২০ + ২,৬০০ = ১১,৬২০
ডিএ – ১১,৬২০ X ১২৫% = ১৪,৫২৫
এইচআরএ – ১১,৬২০ X ১৫% = ১,৭৪৩
এমএ – ৩০০
মোট বেতন – ১১,৬২০ + ১৪,৫২৫ + ১,৭৪৩ + ৩০০ – (পিএফ + প্রফেশনাল ট্যাক্স) = ২৮,১৮৮ – (পিএফ + প্রফেশনাল ট্যাক্স)

শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর নতুন বেতন কাঠামো কি দাঁড়াচ্ছে –
পে-ব্যান্ড – ৯,০২০
ফিটমেন্ট ফ্যাক্টর – ১.২৪
নতুন পে-ব্যান্ড – ৯,০২০ X ১.২৪ = ১১,১৮৫
গ্রেড-পে – ৩,৬০০
অর্থাৎ, বেসিক পে – ১১,১৮৫ + ৩,৬০০ = ১৪,৭৮৫
ডিএ – ১৪,৭৮৫ X ১২৫% = ১৮,৪৮২
এইচআরএ – ১৪,৭৮৫ X ১৫% = ২,২১৮
এমএ – ৩০০
মোট বেতন – ১৪,৭৮৫ + ১৮,৪৮২ + ২,২১৮ + ৩০০ – (পিএফ + প্রফেশনাল ট্যাক্স) = ৩৫,৭৮৫ – (পিএফ + প্রফেশনাল ট্যাক্স)

পিন্টুবাবু আরও জানিয়েছেন, জুনিয়র শিক্ষকদের কারোর ক্ষেত্রে ৬,৭০০ পে-ব্যান্ড থাকলে তা পরিবর্তিত হয়ে ৭,৪৪০ হবে এবং গ্রেড-পে পরিবর্তিত হয়ে ২,৬০০ থেকে ৩,৬০০ হবে। এছাড়াও, সিনিয়র শিক্ষকদের ক্ষেত্রে পে-প্রোটেকশনের কথাও মেনে নিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে পিন্টুবাবুরা দাবি করেছিলেন, শিক্ষকদের বর্ধিত বেতনের এরিয়ার যেন যেদিন থেকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক নিজের যোগ্যতামান বাড়িয়ে নিয়েছেন, সেইদিন থেকেই দেওয়া হয়। পার্থবাবু জানিয়েছেন, তিনি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে এটা জানিয়ে দেবেন। সবমিলিয়ে, অবশেষে জট কাটিয়ে দিনের আলো দেখতে চলেছে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের বর্ধিত বেতন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!