এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোটগণনা পর্যন্ত স্ট্রংরুমের ধারে কাছে ঘেষতে পারবেন না প্রার্থীর এজেন্টরা

ভোটগণনা পর্যন্ত স্ট্রংরুমের ধারে কাছে ঘেষতে পারবেন না প্রার্থীর এজেন্টরা

হাতে আর মাত্র কয়েকটা দিন। তারপরেই এই লোকসভা নির্বাচনে কে শেষ হাসি হাসবে তা চূড়ান্ত হয়ে যাবে। ইতিমধ্যেই ষষ্ঠ দফার নির্বাচন শেষ। ধীরে ধীরে সপ্তম তথা শেষ দফার নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছে ভারতবর্ষ। আর যতদিন এগোচ্ছে ততই যেন উত্তেজনার পারদ ক্রমশ চড়তে শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই আগামী 23 মে ভোট গণনার দিনকে ঘিরে বাড়তি প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। আর এই ভোট গণনা নিয়েই বুধবার বর্ধমানে অনুষ্ঠিত হল সর্বদলীয় বৈঠক।

সূত্রের খবর, জেলার জেলাশাসক অনুরাগ শ্রীবাস্তব সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন। যেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক উত্তম সেনগুপ্ত, উজ্জল প্রামাণিক, শহর তৃণমূল সভাপতি অরূপ দাস, সিপিএমের পক্ষ থেকে বর্ধমান পূর্ব কেন্দ্রের বাম প্রার্থী ঈশ্বর চন্দ্র দাস, প্রাক্তন সভাধিপতি উদয় সরকার ও আব্দুল মালেক, বিজেপির পক্ষ থেকে বর্ধমান পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী পরেশ চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সুনীল গুপ্ত, সৌম্যরাজ বন্দোপাধ্যায় এবং কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বর্ধমান দুর্গাপুর কেন্দ্রের প্রার্থী রণজিৎ মুখোপাধ্যায়, দেবেশ চক্রবর্তী এবং কাশীনাথ গঙ্গোপাধ্যায়।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, অতিরিক্ত জেলা শাসক তথা বর্ধমান পূর্বর রিটার্নিং অফিসার অরিন্দম নিয়োগী সহ অন্যান্যরা। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই স্ট্রং রুমের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত ভিজিট করা হচ্ছে। তবে এবারে রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের এজেন্টরা কোনোওভাবেই স্ট্রংরুমের ধারে কাছে ঘেষতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে জানানো হয়েছে, প্রার্থীদের এজেন্টদের জন্য প্রেমিসেস থেকে কিছু দূরে একটা ক্যাম্প তৈরি করতে হবে। যেখানে পানীয় জল, টয়লেট পরিষেবা রাখার পাশাপাশি বৃষ্টি এবং গরমের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য তাবু বানাতে হবে। আর এখানেই সিসি ক্যামেরার ফুটেজে প্রার্থীদের এজেন্টরা সমস্ত কিছু দেখতে পাবেন।

জানা গেছে, সকাল আটটা থেকে শুরু হওয়া এই ভোট গণনায় আধঘন্টা আগে কাউন্টিং এজেন্টদের ঘরের মধ্যে ঢুকে পড়তে হবে। অন্যদিকে সকাল সাড়ে ছটার মধ্যে প্রার্থী এবং তার ইলেকশনে এজেন্টরা ঢুকে পড়লে স্ট্রংরুমের সিল খোলা হবে। এদিকে ভোট গণনার আগের দিন অর্থাৎ 22 মে রাতে তৃণমূল তাদের কাউন্টিং এজেন্টদের বর্ধমানে রাখারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অনেকে বলছেন, যেহেতু এবার ভিভিপ্যাড রয়েছে, সেহেতু চূড়ান্ত ফলাফল পেতে রাত হয়ে যেতে পারে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!