এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ভোটের আগে নির্বাচন কমিশনের হিসেব অনুযায়ী দেড়শো কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত!

ভোটের আগে নির্বাচন কমিশনের হিসেব অনুযায়ী দেড়শো কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত!

১২ মে কর্নাটকে বিধানসভা নির্বাচন।তার আগেই নগদ টাকা,সোনা রুপো মিলিয়ে মোট ১৫২ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল কমিশন। এর ভিতর নগধ রয়েছে ২৭ লক্ষ টাকা। শুধু তাই নয় এর পাশাপাশি বাজার মূল্যের ২৩ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকার মদ উদ্ধার হয়। তবে কোথা থেকে এসব উদ্ধার হয়েছে এ ব্যাপারে বিশদ খবর পাওয়া যায়নি এখনো।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এরকমই একটা ঘটনার জেরে শিরোনামে এসেছিলো তামিলনাড়ু রাজ্য।২০১৬ সালের ভোটের সময় ৩ টি ট্রাক বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিলো যাতে ছিল প্রায় ৫৭০ কোটি টাকা। এই টাকারও মালিককে খুঁজে পাওয়া যায়নি। স্টেট ব্যাঙ্ক অবশ্য নিজেদেরকে ওই টাকার হকদার দাবী করেছিলো। কিন্তু তাতেও মেলেনি সঠিক জবাব। প্রশ্ন থেকেই গেছে, উপযুক্ত নথি ছাড়া কেন ট্রাক ৩ টি যাচ্ছিলো অতো টাকা নিয়ে? এই বিষয়টি প্রকাশ্যে এসেছিলে ভোটারদের ঘুষ দেওয়ার জন্যই ওই টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। এর ফলে স্থগিত করা হয়েছিলো দুটি আসনের উপনির্বাচন। পাঞ্জাবেও গত বিধানসভা ভোটের সময় ভোটারদের বিলি করা হয়েছিলো মদের টোকেন সে খবরও আর গোপন থাকেনি।
নির্বাচন আসলে এই ধরনের খবর প্রকাশ্যে আসা খুবই সাধারণ ব্যাপার হয়ে গেছে দেশে।ভোট,বিধায়ক,সাংসদ সবই এখন বিক্রয়যোগ্য পন্যে পরিনত হয়েছে।অভিযোগের তীর ছোঁড়াছুঁড়ি বিরোধী পার্টিদের ভিতর যতই হোক না কেন, প্রায় সব রাজনৈতিক দলই এই অপকর্মে যুক্ত থাকে। নোটবন্দির সময় কিন্তু বলা হয়েছিলো নির্বাচনের জন্যে যে অর্থ ব্যবহার করা হয় তার সবটাই অবৈধ হিসাবে বহির্ভূত। বলা হয়েছিলো ইতি ঘটবে নোটবাতিলের প্রবনতার। সেই দাবী নিয়ে কিন্তু ফের উঠছে প্রশ্ন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!