এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সকলে বিজেপিতে কেন চলে যাচ্ছে!মন্ত্রী নেতাকে ধমক দিয়ে আসরে হাজির খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সকলে বিজেপিতে কেন চলে যাচ্ছে!মন্ত্রী নেতাকে ধমক দিয়ে আসরে হাজির খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

লোকসভা ভোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 42 এ 42 এ শ্লোগান তুলেছিলেন। কিন্তু তার সেই স্লোগান পরিপূর্ণতা পায়নি। উল্টে মোটে 22 টি আসন দখল করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রাজ্যের শাসক দলকে। অপরদিকে বিজেপি নিজেদের দখলে 18 টি আসন নিয়ে তৃণমূলের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে।

আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে দলের সংগঠনের হাল ফেরাতে প্রতি শুক্রবার করে তৃণমূল ভবনে বিভিন্ন জেলাকে নিয়ে বৈঠক করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন বাঁকুড়া জেলা নেতৃত্বকে নিয়ে বৈঠক করেন তিনি। আর সেখানেই বাঁকুড়া জেলার একাধিক নেতা নেত্রীদের কড়া ভাষায় ধমক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, এবারে বাঁকুড়া জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্র বাকুড়া এবং বিষ্ণুপুরে পরাজয় হয়েছে তৃনমূলের। আর ভোটে হারের পর থেকেই তৃণমূল ছেড়ে একাধিক নেতা কর্মীরা গেরুয়া শিবিরের যোগদান করতে শুরু করেছেন। যা নিঃসন্দেহে শাসকদলের কাছে অস্বস্তির কারণ। আর এই পরিস্থিতিতে হালে পানি আনতে এদিনের বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের নেতাদের কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দিলেন বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

সূত্রের খবর, এদিন বাঁকুড়া জেলার বৈঠকে সকল নেতা নেত্রীদের উদ্দেশ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সকলের বাড়ি যান। মানুষের সুখ-দুঃখের কথা শুনুন। সরকারি প্রকল্পের ঠিকঠাক সুবিধা সাধারণ মানুষ পাচ্ছে কিনা, সেই খবর নিন।”

আর এরপরই সংগঠনের ভুল ত্রুটি নিয়ে মুখ খুলতে গিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, “আমাদের যে ভুল ত্রুটি আছে তা অবিলম্বে সংশোধন করতে হবে। কাউকে ভয় পাওয়ার কোনো দরকার নেই। লড়াই করে এগিয়ে চলুন। একুশ সালে আমরা আবার ফিরে আসব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর এরপরই বাঁকুড়ার প্রাক্তন জেলা সভাপতি অরূপ খাঁ এবং জেলা পরিষদের প্রাক্তন সভাপতি অরূপ চক্রবর্তীকে উদ্দেশ্য করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “তোমাদের এলাকায় এত ধ্বস কেন! সকলে বিজেপিতে কেন চলে যাচ্ছে!” শুধু তাই নয়, এদিনের বৈঠক থেকে বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা দরিপাকেও কড়া ভাষায় সতর্ক করে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝতে পেরেছেন যে, দলের নেতারা নিচুতলার কর্মীদের প্রতি ছড়ি ঘুরিয়েছেন‌। আর তা উপলব্ধি করতে পেরেই নির্বাচনের খারাপ ফলাফলের পর দলের সংগঠনের হাল ফেরাতে সাধারণ মানুষের সঙ্গে আরও বেশি করে দলীয় নেতৃত্বকে মেশার পরামর্শ দিলেন তৃনমূল নেত্রী। কিন্তু এতসব করেও দলের সংগঠনকে ঘুরে দাঁড় করাতে পারবেন কি না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!