এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এবার উত্তরবঙ্গকে নিজেদের দলখলে রাখতে মাঠে নামলেন দিলীপ ঘোষ জোর জল্পনা

এবার উত্তরবঙ্গকে নিজেদের দলখলে রাখতে মাঠে নামলেন দিলীপ ঘোষ জোর জল্পনা



 

2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলা থেকে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছিল। তবে সারা বাংলা থেকে তারা 18 টা আসন পেলেও, শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ থেকেই তাদের দখলে এসেছিল 7 টি আসন। আর আটটি আসনের মধ্যে সাতটি আসন পেয়ে উত্তরবঙ্গকে নিজেদের খাসতালুক হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার জন্য উদগ্রীব হয়েছিল গেরুয়া শিবিরের নেতৃত্ব। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে প্রভূত সাফল্যের পর, যত দিন যাচ্ছে, যত সময় গেছে, ততই উত্তরবঙ্গে বিজেপির অবস্থা খারাপ হতে শুরু করেছে। কিছুদিন আগেই কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের পরাজিত হতে হয়েছে বিজেপি প্রার্থীকে।

শুধু তাই নয়, নাগরিকত্ব সংশোধনী থেকে শুরু করে অন্যান্য ইস্যুতে তৃণমূলের বিরোধিতা বিজেপি কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে। আর তাই এই পরিস্থিতিতে উত্তরবঙ্গে পদ্মের জোয়ার আনতে নয়া রনকৌশল করতে চলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সূত্রের খবর, আগামী 20 তারিখ থেকে টানা আট দিন উত্তরবঙ্গে থাকবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। আর দীলিপবাবুর টানা এতদিন উত্তরবঙ্গে থাকা নিয়ে এখন নানা মহলে তৈরি হয়েছে জল্পনা। তাহলে কি দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করতেই এখন দিলীপ ঘোষের এই উত্তরবঙ্গ সফর! প্রশ্নটা করতে শুরু করেছেন অনেক রাজনীতিবিদরাই।

জানা গেছে, উত্তরবঙ্গের প্রায় প্রতিটি জেলাতেই জেলা নেতৃত্বদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। কিন্তু ঠিক কী কী কর্মসূচি রয়েছে দীলিপবাবুর! বিজেপি সূত্রে খবর, 20 তারিখ এনজিপি স্টেশনে নেমে জলপাইগুড়ি সফরে যাবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। আর সেখানেই নাগরিকত্ব সংশোধনী নিয়ে অভিনন্দন যাত্রা করে কোচবিহারে রাত্রিবাস করবেন তিনি। আর 20 তারিখের পর 21 তারিখ কোচবিহার জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করে ফালাকাটায় গিয়ে সেখানকার বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করবেন দিলীপ ঘোষ বলে মনে করছেন একাংশ।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সেক্ষেত্রে 21 থেকে 23 তারিখ পর্যন্ত ফালাকাটাতেই থাকার কথা রয়েছে দিলীপ ঘোষের। তবে 24 তারিখ আলিপুরদুয়ারে গিয়ে সেখানেও নাগরিকত্ব সংশোধনীর সমর্থনে সভা করার করার কথা রয়েছে দিলীপ ঘোষের। পরবর্তীতে শিলিগুড়িতে বৈঠক করে 25 তারিখ ডালখোলা গিয়ে দলের জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। এরপর 26 তারিখ দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে জেলা বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করে বুনিয়াদপুরে পদযাত্রা করবেন দিলীপ ঘোষ। আর দক্ষিণ দিনাজপুরের কর্মসূচি সেরে মালদহ পৌঁছে যাবেন তিনি। 27 তারিখ মালদহের ইংলিশবাজারে একটি পদযাত্রার মাধ্যমে নিজের উত্তরবঙ্গের কর্মসূচি শেষ করবেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ। আর উত্তরবঙ্গের প্রায় প্রতিটি জেলায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের এই টানা কর্মসূচি এখন নানা মহলে তীব্র জল্পনার সৃষ্টি করেছে।

অনেকে বলছেন, দিলীপ ঘোষের এই প্রথম এতদিন কার উত্তরবঙ্গ সফরে দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করার যে একটা স্পষ্ট বার্তা পাওয়া যাবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত অনেকেই। একাংশের মতে, বিজেপি বর্তমানে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে তীব্র সমস্যায় রয়েছে। পাশাপাশি এনআরসি নিয়েও তৃণমূলের প্রচারে বিজেপি অনেকটাই ব্যাকফুটে। তাই এই পরিস্থিতিতে নিজেদের মরা গাঙে বান আনতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি উত্তরবঙ্গের প্রায় প্রতিটি জেলাতেই বৈঠক করে সাংগঠনিক বৈঠক করতে চাইছেন বলে মত বিশ্লেষকদের। তবে এই ব্যাপারে কি বলছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ! এদিন এই প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেন, “30 তারিখ পার্লামেন্টে যাওয়ার আগে যেখানে পৌরসভা নির্বাচন রয়েছে, সেখানে একবার ঘুরব।”

সেই উদ্দেশ্যেই কর্মসূচি ঠিক হয়েছে। উত্তরবঙ্গ বরাবরই আমাদের সঙ্গে আছে। পৌরসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে আমরা খুব ভালো রেজাল্ট করব।” তবে লোকসভা নির্বাচনের পর যেভাবে উত্তর বঙ্গে বিজেপি মুখ থুবরে পড়েছে, তাতে তারা যে ভালো অবস্থায় নেই, তা ভালই জানেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর তাইতো নিজের দলকে ভালো অবস্থায় নিয়ে যেতে পৌরসভা নির্বাচনের আগে দিলীপবাবুর এই উত্তরবঙ্গ সফর বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের। এখন এই পরিস্থিতিতে দিলীপ ঘোষের এই উত্তরবঙ্গ সফর আদৌ কাজে দেয় কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!