এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > ন্যায্য বেতনের দাবিতে উস্থির হাত ধরে শুরু ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’, নতুন করে ঝড় শুরু শিক্ষক আন্দোলনে

ন্যায্য বেতনের দাবিতে উস্থির হাত ধরে শুরু ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’, নতুন করে ঝড় শুরু শিক্ষক আন্দোলনে

রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের ন্যায্য বেতনের দাবিতে একের পর নতুন ও অভিনব পদক্ষেপে রীতিমত ঝড় উঠে গেছে রাজ্য রাজনীতিতে। আর সেই তীব্র শিক্ষক আন্দোলনে এবার নবতম সংযোজন ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’, যা শুরু হয়েছে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন বা ইউইউপিটিডব্লুএর হাত ধরে।

এই আন্দোলনের অন্যতম মুখ্য কর্মসূচি নিয়ে উস্থির ওয়ার্কিং কমিটির মেম্বার তথা অন্যতম শীর্ষনেতা মইদুল ইসলাম আজ নিজে হাজির হয়েছিলেন বসিরহাটে। সঙ্গে ছিলেন কামদুনির মাস্টারমশাই প্রদীপ মুখোপাধ্যায় সহ আরও অনেক শীর্ষনেতা। এমনিতেই পিআরটি স্কেলের পরবর্তী ধাপ হিসাবে ন্যায্য ও যৌক্তিকভাবে রাজ্যজুড়ে ‘স্পোর্টসের চাঁদা’ বয়কট করে রাজ্য সরকারকে রীতিমত অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছেন শিক্ষকমহল। আর তার উপরে এবার আত্মসম্মান প্রচার অভিযান নিয়ে রীতিমত ঝড় উঠে গিয়েছে শিক্ষামহলে।

এই ব্যাপারে মইদুলবাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আজ থেকে ইউইউপিটিডব্লুএর ডাকে আত্মসম্মান প্রচার অভিযান শুরু হল উত্তর ২৪ পরগনা জেলা থেকে। গোটা ডিসেম্বর মাস জুড়েই এই অভিনব অভিযান হবে এবং জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে চুড়ান্ত কর্মসুচী নেওয়া হবে। তবে, আজই আত্মসম্মান প্রচার অভিযানের শুভ সূচনা হল। আমরা রাজ্য সরকারের কাছে কোন অন্যায্য বা ‘বর্ধিত’ বেতন দাবি করছি না। আমাদের যা প্রাপ্য – সেই ন্যায্য পাওনাটুকুই আমরা রাজ্য সরকারের কাছে দাবি করছি – সম্পূর্ণ অরাজনৈতিকভাবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

মইদুলবাবু আরও জানান, আজকের সাংগঠনিক বৈঠক মূলত ছিল বঞ্চিত প্রাথমিক শিক্ষকদের পিআরটি স্কেলের দাবীতে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলাকে ৬ টি জোনে ভাগ করা হয়, আগামীদিনে রাজ্যব্যাপী জোরদার আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে ৬ টি জোনের মধ্যে আজ বসিরহাট জোনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কামদুনির প্রতিবাদী শিক্ষক প্রদীপ মুখার্জী সহ ইউইউপিটিডব্লুএর রাজ্যকমিটির নেতা সুজিত দাস, বিশ্বজিত সর্দার, গোপাল সরকার, বিপ্লব সেন সহ জেলা সভাপতি অনিরুদ্ধ সাহা ও সম্পাদক রতন দে। একই সঙ্গে – পারমিতা বড়ুয়া, সীমা মোহান্তি, মুন্না ব্যানার্জীর মত অনেক শিক্ষিকাদেরও উপস্থিতি আগামীদিনের আন্দোলনের আশা দেখাচ্ছে। অতীত ইতিহাস আমাদের শিক্ষা দিয়েছে – আন্দোলনই দাবী আদায়ের একমাত্র পথ।

প্রসঙ্গত, এর আগে উস্থির রাজ্য সভাপতি সন্দীপ ঘোষ জানিয়েছিলেন, আমরা পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি শীর্ষ জনপ্রতিনিধিদের আমাদের দাবির কথা জানিয়েছি। কিছুদিন আগেই বাম এবং কংগ্রেস বিধায়করা বিধানসভায় প্রাথমিক শিক্ষকদের বঞ্চনার বিষয়টি উল্লেখ করেন। কিন্তু, সরকার পক্ষ থেকে বিষয়টি তুলতেই বাধা দেওয়া হয়। আর এই কারনেই বিরোধী বিধায়কেরা বিধানসভা থেকে ওয়াকআউট পর্যন্ত করেন। ডিসেম্বর মাস আগত, রাজ্যের প্রতিটি শিক্ষক ব্যস্ত থাকবেন স্পোর্টস, বাৎসরিক পরীক্ষা ও তার রেজাল্ট তৈরি নিয়ে।

সন্দীপবাবু আরও জানিয়েছিলেন, আমরা শিক্ষক সমাজ – দায়িত্ত্ববান ও সংবেদনশীল, কোনমতেই এমন পদক্ষেপ কোনোদিন নিই নি যাতে সমাজের ক্ষতি হয় এবং আগামী দিনেও এরকম কোন হঠকারী পদক্ষেপ নেব না। তাই, আমরা ডিসেম্বর মাসে কোন কর্মসূচি নিচ্ছি না। কিন্তু জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকেও যদি সরকার পক্ষ বেতন বৈষম্য নিয়ে কোন রকম উচ্চবাচ্য না করেন – আমরা বৃহত্তর আন্দোলনে রাস্তায় নামতে বাধ্য হব। আমরা আমাদের ন্যায্য দাবি আদায়ের জন্য আমরা এই রাজ্যের শাসক এবং বিরোধী সব প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনকে অনুরোধ করব – আপনারাও প্রাথমিক শিক্ষকদের ন্যায্য বেতনের দাবিতে এই বৃহত্তর আন্দোলনে শামিল হয়ে সরকারের উপরে চাপ সৃষ্টি করুন।

আর তাই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারণা উস্থির শীর্ষনেতাদের মস্তিষ্কপ্রসূত এই ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’ – এক অর্থে ‘মাস্টারস্ট্রোক’। কেননা একদিকে যেমন শিক্ষক সমাজ দায়িত্ত্ববান নাগরিক ও সমাজ গঠনের মেরুদন্ড হিসাবে – বাৎসরিক ক্রীড়া ও পরীক্ষার ব্যাপারে কোনো অসুবিধার সৃষ্টি করছেন না। অন্যদিকে, কিন্তু একই সঙ্গে নিজেদের ন্যায্য দাবির পথে অনড় থেকে সমাজের শিক্ষিত অংশকে রীতিমত আলোড়িত করে দিচ্ছেন নিজেদের ন্যায্য প্রাপ্যের দাবিতে। সবমিলিয়ে – সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক মঞ্চ থেকে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে এমন অভিনব পদক্ষেপে কুর্নিশ কুড়িয়ে নিচ্ছেন রাজ্যের মাস্টারমশাইরা।

বসিরহাট থেকে শুরু হল প্রাথমিক শিক্ষকদের ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’।
প্রাথমিক শিক্ষকদের ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’-এর মঞ্চে বক্তব্য রাখছেন প্রতিবাদী শিক্ষক মইদুল ইসলাম।
আজ থেকে শুরু হওয়া প্রাথমিক শিক্ষকদের ‘আত্মসম্মান প্রচার অভিযান’-এ শিক্ষিকাদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মত।
আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!