এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > উপনির্বাচন শিয়রে, অথচ “গায়েব” হেভিওয়েট নেত্রী! তীব্র জল্পনা রাজ্য রাজনীতিতে!

উপনির্বাচন শিয়রে, অথচ “গায়েব” হেভিওয়েট নেত্রী! তীব্র জল্পনা রাজ্য রাজনীতিতে!

 

কথায় আছে, “যার বিয়ে তার হুঁশ নাই, পাড়া পড়শীর ঘুম নাই।” কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে ঠিক যেন এমনটাই অবস্থা কংগ্রেসের ক্ষেত্রে। প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির গড় বলে পরিচিত এই কালিয়াগঞ্জে উপনির্বাচন হলেও সেখানে দেখা নেই দীপা দাশমুন্সির। যা নিয়ে নানা মহলে নানা গুঞ্জন দেখা দিতে শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত, কালিয়াগঞ্জে কংগ্রেসের বিধায়ক প্রমথনাথ রায় প্রয়াত হওয়ার কারণেই তার ছেড়ে যাওয়া এই আসনে বিধানসভা উপনির্বাচন হচ্ছে। যেখানে প্রথমেই প্রার্থী ঘোষণা করে দেয় কংগ্রেস। প্রয়াত বিধায়কের মেয়ে ধীতশ্রী রায়কে তারা প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে। কিন্তু এতদিন যেখানে দাপটের সঙ্গে রাজনীতি করে এসেছেন প্রয়াত কংগ্রেস নেতা প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সি, সেখানে তাঁর অবর্তমানে তার স্ত্রীর অনুপস্থিতি নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

অনেকে বলছেন, গত 2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে খুব বেশি ভোটের মার্জিন না হলেও পরাজিত হয়েছেন দীপা দাশমুন্সি। যার পর থেকে তাকে এলাকায় সেইভাবে আর দেখা যায়নি। কিন্তু হেরে গেলেও নিজের গড় বলে পরিচিত কালিয়াগঞ্জে ভোটের সময় কেন দেখা যাচ্ছে না সেই দীপাদেবীকে, তা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

এখানকার দক্ষিণপন্থী ঘরানার অনেক মানুষ বলছেন, প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সি যতদিন সুস্থ ছিলেন, ততদিন তিনি এলাকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন। কোনো সমস্যা হলেই মানুষ তার কাছে ছুটে যেতেন। কিন্তু যেভাবে তাঁর স্ত্রী ধীরে ধীরে নিজের গড় ছেড়ে দিচ্ছেন, তাতে এত নেতার গরিমা অনেকটাই নষ্ট হচ্ছে বলে দাবি একাংশের। ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের দীপা দাশমুন্সির অনুপস্থিতি নিয়ে তাকে ভোটপাখি বলে কটাক্ষ করতে শুরু করেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে তৃনমূলের অসীম রায় বলেন, “দীপা দাশমুন্সির কোনো ক্যারিশমা নেই। মানুষ রাজনীতিটা বোঝে, সৌখিনতা নয়।” এদিকে এই প্রসঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ রায় বলেন, “আমাদের প্রার্থী কমল সরকার দলমত নির্বিশেষে সকলের পরিচিত, প্রিয় মানুষ। তাই দ্বীপা দাসমুন্সি এখানে প্রচারে এলেও কোনো প্রভাব পড়বে না। ওকে কালিয়াগঞ্জের মানুষ ভোটপাখি বলে চিনে ফেলেছেন। তাই কালিয়াগঞ্জে কংগ্রেস কোনো ফ্যাক্টর হবে না।”

তবে দীপা দাশমুন্সির অনুপস্থিতি নিয়ে নানা মহলে নানা গুঞ্জন শোনা গেলেও, এই ব্যাপারে ঠিক কি বলছে কংগ্রেস! এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা কংগ্রেসের সভাপতি মোহিত সেনগুপ্ত বলেন, “ভোটের সপ্তাহখানেক আগে আমাদের নেত্রী দীপা দাশমুন্সি কালিয়াগঞ্জে আসবেন। টানা কয়েক দিন তিনি দলের প্রার্থীর হয়ে প্রচার করবেন।”

কিন্তু তার অনুপস্থিতি নিয়ে যখন বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো কংগ্রেসকে কটাক্ষ করছে, তখন সেই দীপাদেবীকে ফোন করলেও তিনি তার ফোন ধরেননি। তবে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দীপাদেবীর আসা নিয়ে আত্মপ্রত্যয়ী মনোভাবই শোনা গেলেও এই পুরো ঘটনা যে কংগ্রেসের বিপক্ষেই যাবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!