এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের উপর বোমা মারার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের উপর বোমা মারার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

ফের উত্তপ্ত হল ভাঙড়, তৃণমূল সুপ্রিমোর নির্দেশে শান্তির ঝলক কিছুদিনের জন্য দেখা গেলেও ফের তা নিভে গেলো। গতকাল ফের উতপ্ত হয় ভাঙড়, এমনকি তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতাদের উপর হামলা চালানোর মতো চাঞ্চল্যকর অভিযোগও উঠলো। স্থানীয় সূত্রের খবর অনুযায়ী, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশানুযায়ী ভাঙড়ের শান্তি ফেরানোর জন্য আগামী রবিরার তৃণমূলের তরফ থেকে একটি সভার আয়োজন করা হয়েছে। সেই সভার জায়গা দেখবার জন্যই মঙ্গলবার রাজ্যের মন্ত্রী তথা স্থানীয় বিধায়ক রেজ্জাক মোল্লা সহ আরাবুল ইসলাম, টাইগার আহমেদ, অহিদুল ইসলাম প্রমুখ তৃণমূলের স্থানীয় শীর্ষ নেতৃত্ত্ব গ্রামে গেলে তাঁদের উপর বিক্ষোভে ফেটে পড়েন আন্দোলনকারীরা। শুরু হয় তর্ক-বিতর্ক, শেষে তা রীতিমতো মারপিটের রূপ নেয়। ঘটনায় নাম জড়িয়ে যায় জীবিকা ও বাস্তুতন্ত্র রক্ষা কমিটির সদস্যদের। এমনকি অনন্তপুরের কাছে একদল দুষ্কৃতী তৃণমূলের কর্মীদের লক্ষ্য করে বোমা ছোড়ে বলেও অভিযোগ ওঠে।
একটুর জন্য প্রাণে রক্ষা পান তাঁরা বলে জানিয়েছেন ঘটনায় উপস্থিত থাকা নেতারা।উল্টোদিকে তৃণমূল কর্মীদের তোলা এই সকল অভিযোগকেই নাকচ করেছেন আন্দোলনকারীরা। প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার পাওয়ার গ্রিডের কাজ শুরু হবার প্রসঙ্গে রেজ্জাক মোল্লা আন্দোলনকারীদের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেন, পঞ্চায়েত ভোটর আগেই ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড হবে। ওসব রেড স্টার, ইয়েলো স্টার কেউ আটকাতে পারবে না। আমাদের বাহিনীই যথেষ্ট৷ ভাঙড়ের তৃণমূল বিধায়কের এই বক্তব্যের পাল্টা জবাবে আন্দোলনকারীদের তরফে জমি জীবিকা ও বাস্তুতন্ত্র রক্ষা কমিটির মুখপাত্র অলীক চক্রবর্তী বললেন, ভাঙড়ের স্থিতিশীল অবস্থা ফেরানোর পরিবর্তে বিধায়ক তাদের ‘সাফ’ করবার হুমকি দিলেন। রাজ্য বা কেন্দ্র কোনো গোষ্ঠী এবার আসুক না কেন তিনি তাঁর রক্তের শেষ বিন্দু দিয়ে এই কাজকে আটকাবেন বলে চ্যালেঞ্জ ছোড়েন। বস্তুত, অভিযোগ এবং পাল্টা অভিযোগে দিন দিন ভাঙড়ের পরিস্থিতি আরো অগ্নিগর্ভ হয়ে যাচ্ছে। একদিকে আন্দোলনকারীদের বোমাবাজি আর অন্যদিকে শাসকের পেশিশক্তির হুমকি আরো উত্তপ্ত করছে পরিবেশকে বলে অভিযোগ স্থানীয় বিরোধী দলগুলির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!