এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > থমকে উন্নয়ন! সময়ে কাজ না করায় 12 কোটি টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হল তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভা

থমকে উন্নয়ন! সময়ে কাজ না করায় 12 কোটি টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হল তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভা

তিনি কর্মে বিশ্বাসী বলে মাঝেমধ্যেই দলীয় জনপ্রতিনিধিদের আরও বেশি বেশি করে কাজ করার নির্দেশ দেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তার কথা দলের জনপ্রতিনিধিরা যে এক কান দিয়ে ঢুকিয়ে আরেক কান দিয়ে বের করে দেন, তা প্রায়শই প্রমাণিত হতে দেখা যায়। আর আরও একবার তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভার ক্ষেত্রে সেই ঘটনা প্রমাণিত হয়ে গেল।

সূত্রের খবর, সময়মত কাজ না করার জন্য তৃণমূল পরিচালিত বাঁশবেড়িয়া পৌরসভার গ্রীন সিটি প্রকল্পের বরাদ্দ 12 কোটি টাকা এবার ফেরত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। যা নিয়ে এবার চরম সমালোচনার মুখে পড়তে শুরু করেছে পুর কর্তৃপক্ষ থেকে পুরসভার জনপ্রতিনিধিরা।

জানা গেছে, গ্রীন সিটি প্রকল্পে পুর এলাকার সৌন্দর্যায়নের জন্য রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রথম দফায় পৌরসভাগুলিকে টাকা দেওয়া হয়। আর সেই টাকায় কিছু কাজ হওয়ার পরই পরবর্তী দফায় 12 কোটি টাকা দেওয়া হয়েছিল এই বাঁশবেড়িয়া পৌরসভাকে। কিন্তু সময়মত এই পৌরসভা সেই টাকার কাজ শুরুই করতে পারেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। যার জন্য এবার সেই টাকা পৌরসভার কাছ থেকে ফেরত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, সম্প্রতি কাজে ঢিলেমি করা নিয়ে পৌরসভার বিরুদ্ধে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে রাজ্যের তরফ থেকে ওই টাকা ফিরিয়ে নেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। এই গোটা ঘটনায় এবার তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভার ব্যর্থতা নিয়ে রাস্তায় নামার উদ্যোগ নিচ্ছে গেরুয়া শিবির।

এদিন এই প্রসঙ্গে পুরসভার বিরুদ্ধে সরব হয়ে বিজেপির শ্রমিক সংগঠনের হুগলির সাংগঠনিক সভাপতি সপ্তর্ষি বন্দ্যপাধ্যায় বলেন, “চূড়ান্ত প্রকল্প জমা দিয়ে টাকার অনুমোদন পাওয়া যায়। তাই প্রকল্প তৈরীর জন্য সময় নষ্টের যুক্তি ঠিক নয়। আগের কাজ যদি চলতে থাকে, তবে টেন্ডার করার সমস্যা হওয়ার কথা নয়। আসলে উন্নয়নের কাজ করতে ব্যর্থতা আড়াল করার জন্যই এখন নানা যুক্তি খাড়া করা হচ্ছে। আমরা এই নিয়ে মানুষের দরবারে যাব।”

তবে বিজেপির এই দাবি মানতে নারাজ শহর তৃণমূলের সভাপতি তথা পৌরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল অমিত ঘোষ। এদিন তিনি বলেন, “আমাদের প্রকল্পের জন্য 28 কোটি টাকা দেওয়া হয়েছিল। 12 কোটি টাকা সরকার ফিরিয়ে নিলেও বাকি টাকার কাজ চলছে। অনেক ক্ষেত্রেই টেন্ডার জমা না পড়ায় বারবার টেন্ডার প্রক্রিয়া চালু রাখতে হয়েছিল। তার কারণে কিছুটা দেরি হয়েছে। তবে ওই টাকা আমরা পেয়ে যাব। ফলে উন্নয়নের কাজের কোনো সমস্যা হবে না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, যদি সরকার আবার টাকাই দেবে, তাহলে বরাদ্দকৃত টাকা কেন সরকার ফিরিয়ে নিল? আসলে বিজেপি এখন রাস্তায় নামতে পারে এই ইস্যুকে সামনে রেখে, তাতেই বেশি আতঙ্কিত হতে শুরু করেছে তৃণমূল। আর তাইতো এখন এই ব্যাপারে শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে শুরু করেছে তারা বলে মত সমালোচকদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!