এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিগত আট মাসে থমকে আছে উন্নয়ন – লোকসভার আগেই গতি আনতে বিশেষ পরিকল্পনা পঞ্চায়েতে

বিগত আট মাসে থমকে আছে উন্নয়ন – লোকসভার আগেই গতি আনতে বিশেষ পরিকল্পনা পঞ্চায়েতে



নির্বাচনের কারণে যাতে রাজ্যের উন্নয়নের গতি আটকে না থাকে তার পক্ষে বারে বারে সওয়াল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ভোট যে বড় বালাই। কিন্তু বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনের কারনে এবং দীর্ঘ আট মাস ধরে বোর্ড গঠন না হওয়ার থমকে ছিল রাজ্যের গ্রামাঞ্চল গুলির উন্নয়ন। এখন সেই বোর্ড গঠনের কাজও সমাপ্ত হয়েছে। তাই এবারে গ্রামের উন্নয়নের কাজে আর কোনরকম ঢিলেমি চায় না রাজ্য।

সূত্রের খবর, গ্রামের উন্নয়নের কাজে কাজে গতি আনতে এবার প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান তৈরি করার নির্দেশ দিল রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তর। কিন্তু কি ভাবে এই ডেভেলপমেন্ট প্ল্যানে উপকৃত হবে গ্রামের মানুষেরা? জানা গেছে, এ কর্মসূচি পালনের জন্য প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতকে বিশ্বব্যাংকের তরফ থেকে দেওয়া হচ্ছে এক কোটি টাকা। আর যেই টাকায় সেই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি নিজেদের বিল্ডিং তৈরি, কম্পিউটার বসানো এবং ইন্টারনেট কানেকশনসহ একগুচ্ছ আধুনিক পরিকাঠামো তৈরি করবে। আর এর জন্য পঞ্চায়েত দপ্তরের একটি সফটওয়্যার ডাউনলোড করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিকে। আর এই সিস্টেমটি ডাউনলোড করলেই পঞ্চায়েত ভবনে বসে পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং চাইলে নবান্নে বসেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের সমস্ত পঞ্চায়েতের কাজ ঠিক কোন গতিতে এগোচ্ছে তা প্রত্যক্ষ করতে পারবেন। ফলে এই নজরদারিতে একদিকে যেমন গ্রামের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে ঠিক তেমনি বিগত বছরগুলোর মতো ভবিষ্যতেও সারাদেশের মধ্যে শ্রেষ্ঠ পঞ্চায়েতের স্বীকৃতি পাবে এই রাজ্য। কিন্তু কবে থেকে শুরু হবে এই কাজ?

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এ প্রসঙ্গে এদিন রাজ্যের পঞ্চায়েত সচিব অজিত বর্ধন বলেন, “100 দিনের কাজ, বাংলার আবাস যোজনা, মিশন নির্মল বাংলা সহ বিভিন্ন প্রকল্পের উন্নয়নের কাজ যাতে আটকে না থাকে তার জন্য গ্রাম পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট প্ল্যান বা জিপিডিপি তৈরি করতে বলা হয়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসেই এই প্রকল্পের পরিকল্পনা তৈরি করার পরই রাজ্যের অনুমোদন পেলেই আর্থিক বরাদ্দ করা হবে।” রাজনৈতিক মহলের মতে, সামনেই লোকসভা ভোট। আর তার আগেই গ্রামের সমস্ত উন্নয়নমূলক প্রকল্পের কাজ শেষ করতে চায় রাজ্য সরকার। তাই এবার সেই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিকে উন্নয়নের ব্যাপারে তৎপর হওয়ার নির্দেশ দিল নবান্ন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!