এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > উন্নয়নের হিসাব বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েই বীরভূমের জয়ের হ্যাটট্রিক নিশ্চিত করতে চান শতাব্দী রায়

উন্নয়নের হিসাব বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েই বীরভূমের জয়ের হ্যাটট্রিক নিশ্চিত করতে চান শতাব্দী রায়



ভোট আসে ভোট যায়। কিন্তু ভোটের পর জিতে আর তেমনভাবে কাজ না করে এলাকার উন্নয়নে জনপ্রতিনিধিরা ঠিক কি কি কাজ করেছেন তার কোনো হিসেব পাওয়া যায় না বলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিযোগ তুলতে দেখা যায় ভোটারদের।কিন্তু আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের বিদায়ী সাংসদ তথা প্রার্থী শতাব্দী রায় বিগত দিনে এলাকার সাংসদ থাকার সময় কি কি কি কাজ করেছেন তার তথ্য তুলে ধরে উন্নয়নের খতিয়ান সম্বলিত চার পাতার বিশেষ প্রচার পুস্তিকা বিলি করবেন বলে জানা গেছে।

সূত্রের খবর, “5 বছরের হিসেব নিন, তৃণমূলকে ভোট দিন” – এই লিফলেটটি আগামী 5 এপ্রিল মনোনয়ন জমা দেওয়ার দিনই তা প্রকাশ্যে এনে বীরভূমের লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত সাতটি বিধানসভা এলাকায় প্রায় প্রতিটি বিধানসভার 30 হাজার বাড়িতে সেই পুস্তিকা পৌঁছে দেওয়ার কাজ করবেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এই বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত দুবরাজপুর, সিউড়ি, সাঁইথিয়া, রামপুরহাট নলহাটি এবং হাসন বিধানসভায় সাংসদ থাকার সময় তিনি ঠিক কি কি কাজ করেছেন তার বিস্তারিত বিবরণ সেই লিফলেট পুস্তিকায় তুলে ধরা হবে।

আর এই পত্রিকার প্রথম পাতায় রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি এবং কংগ্রেসকে আক্রমণের পাশাপাশি একদম শেষ পাতায় সাতটি বিধানসভায় কত টাকা উন্নয়নের জন্য ব্যয় করা হয়েছে – তা জানিয়ে শতাব্দী রায়কে ভোট দেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে বলে খবর। এদিন এই প্রসঙ্গে বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায় বলেন, “আমি আমার ভোটারদের কাছে সবকিছু প্রকাশ্যে তুলে ধরতে চাই। কি কি কাজ এমপি হিসেবে করেছি তা তাদের জানার অধিকার আছে। তাই উন্নয়নের খতিয়ান তাদের হাতে তুলে দিয়ে আমাকে ফের জয়যুক্ত করার আবেদন জানাচ্ছি।”

তবে ভোটের আগে এটাকে নাটক হিসেবেই অভিহিত করছে বিরোধীরা। এদিন এই প্রসঙ্গে পাল্টা সেই শতাব্দী রায়কে খোঁচা দিয়ে বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় বলেন, “উন্নয়নের নামে যে শুধু লুটই হয়েছে তা মানুষ বুঝে গিয়েছে। এখন আর কোনো কিছু করেই তৃণমূলের ডুবন্ত নৌকাকে তোলা যাবে না।” একই কথা বলেছেন বীরভূম জেলা সিপিএম সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য সঞ্জীব বর্মনও। সব মিলিয়ে এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে হ্যাটট্রিক করার লক্ষ্যে লিফলেট বিলি করে প্রচারে বীরভূমের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!