এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > নিজের গড়ে উন্নয়নের জোয়ার আছড়ে পড়ল খোদ অনুব্রত মণ্ডলের উপর, অস্বস্তিতে তৃণমূল সভাপতি

নিজের গড়ে উন্নয়নের জোয়ার আছড়ে পড়ল খোদ অনুব্রত মণ্ডলের উপর, অস্বস্তিতে তৃণমূল সভাপতি

একের পর এক মন্তব্য করে রাজ্য রাজনীতিতে উল্লেখযোগ্য স্থান করে নিয়েছেন বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। কখনও গুড় বাতাসা তো কখনো রাস্তায় বেরোলেই উন্নয়ন দেখার কথা বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয় “কেষ্ট” এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বীরভূমে।

সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত ভোটের আগে তিনি বলেছিলেন, “রাস্তায় বেরোলেই সকলে উন্নয়ন দেখতে পাবে।” যা নিয়ে সমালোচনায় সরব হয়েছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। কিন্তু এবারে সেই উন্নয়ন না হওয়ার জন্যই অবশেষে গ্রামবাসীদের ক্ষোভের মুখে পড়লেন সেই অনুব্রত মণ্ডল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী 19 শে জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশ উপলক্ষে বীরভূমের প্রতিটি ব্লকেই এখন থেকে জনসভা করতে শুরু করে দিয়েছেন তিনি। রবিবার দুবরাজপুরের লোভা গ্রাম পঞ্চায়েতের পলাশডাঙ্গা গ্রামের একটি সভা থেকে জনগণের সুবিধা-অসুবিধার কথা জানতে চান জেলা তৃণমূলের সভাপতি। আর সেখানে অনেকেই নিজেদের ক্ষোভ উগরে দেন। কেউ বলেন, “বিধবা ভাতা পাই না”। আবার কারোর প্রশ্ন, “এখনও বাড়ি পাইনি। কবে পাবো?”

এদিকে নিজের গড়ে এইভাবে সাধারণ মানুষের প্রশ্নের মুখে পড়ে কিছুটা ইতস্তত বোধ করেন অনুব্রত মণ্ডল। তড়িঘড়ি এই ব্যাপারে সমস্যা সমাধানের নির্দেশ দেন ব্লক নেতৃত্বকে। সভামঞ্চে উপস্থিত ব্লক সভাপতি ভোলা মিত্রকে এলাকার 10 জন অঞ্চল সভাপতিকে ডেকে বিধবা ভাতা ও বার্ধক্য ভাতা নিয়ে একটি সমীক্ষা করার নির্দেশ দেওয়ার পাশাপাশি পানীয় জলের অসুবিধা মেটানোরও এদিন নির্দেশ দেন তিনি।

অন্যদিকে জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরীকেও ব্লকের 12 টি জায়গায় সৌর চালিত পাম্প করে দেওয়ার জন্যও একটি নির্দেশ দেন অনুব্রত মণ্ডল। তবে শুধু দলের নেতা র্মী বা সাধারণ মানুষকে আশ্বাস দেওয়াই নয়, এদিনের এই সভামঞ্চ থেকে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সাধ্বী সরস্বতীকেও প্রবল কটাক্ষ করেন বীরভূমের কেষ্ট।

গত শনিবারই কলকাতায় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এক অনুষ্ঠানে সাধ্বী সরস্বতী পশ্চিমবঙ্গের নারীদের অবস্থা খুব খারাপ বলে হাজার টাকা দিয়ে একটি করে তরবারী কেনার কথা বলেছিলেন। এদিন তারই পাল্টা বক্তব্য রাখতে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “এক সরস্বতী বলছে 1000 টাকা দিয়ে তরোয়াল কিনুন। এ কোন সরস্বতী? তরোয়াল দিয়ে হিন্দু কাটবে? মুসলিমকে কাটবে? আর ও একা বাংলায় থাকবে? এসব এখানে চলবে না। বাংলার মাটি, দুর্জয় ঘাঁটি। পাচনের বাড়িতে আমরা সেই তরবারি ভেঙে দেব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক মহলের মতে, একদিকে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে জনগণের ক্ষোভকে এদিনে মঞ্চ থেকে যেমন সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেন তিনি ঠিক তেমনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে ফের নিজের সুরকে চওড়া করে স্বমহিমায় অবতীর্ণ হলেন অনুব্রত মণ্ডল। তবে যেখানে এতদিন অনুব্রত মন্ডলের সামনে লোকে মুখ খুলতো না সেখানে এ হেনো ক্ষোভের মুখে পরে যাওয়ায় চরম অস্বস্তিতে অনুব্রত মন্ডল এমনটাই মত রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!