এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য -উর্দুতে রামায়ণের অনুবাদ করে সম্প্রীতির নয়া নজির ডাক্তারের

বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য -উর্দুতে রামায়ণের অনুবাদ করে সম্প্রীতির নয়া নজির ডাক্তারের

ধর্মের নামে হিংসা এবং হানাহানি সন্ত্রাসের ঘটনা ভারতবর্ষের প্রেক্ষিতে নতুন নয়। বহু ধর্মের দেশ ভারতবর্ষে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রান্তে মানুষ ধর্মীয় বিভেদের জ্বলন্ত ঘটনার সাক্ষী থেকেছে। এসবের মধ্যেও ধর্মীয় সম্প্রীতিকে মানবতার অংশ হিসেবে মেলে ধরলেন এক মুসলিম মহিলা। কানপুরের অধ্যাপিকা ডঃ মাহি তালাত সিদ্দিকি হিন্দু এবং মুসলমান দুই ধর্মের সমন্বয়ের চিহ্ন স্বরূপ সম্পূর্ণ রামায়ণ মহাকাব্যটি ঊর্দুতে অনুদিত করলেন। জানা যাচ্ছে দু’বছর আগে বদ্রী নারায়ণ তিওয়ারি নামে কানপুরের এক বাসিন্দা ডঃ সিদ্দিকিকে রামায়ণ উপহার দিয়েছিলেন। এরপরেই তিনি মহাকাব্যটি অনুবাদের সিদ্ধান্ত নেন। প্রথম ৬ মাস তাঁর রামায়ণ পড়তে এবং তার অন্তর্নিহিত অর্থ বুঝতে সময় লেগেছিলো। তারপরেই তিনি লেখার কাজে হাত দেন। দীর্ঘ দেড় বছরের কঠোর অধ্যাবসায়ের পরে তিনি তাঁর অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছান।

em>আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ডঃ মাহি তালাত সিদ্দিকি জানালেন গোটা কাজটি করার পরে তিনি এক আলাদা রকমের মানসিক তৃপ্তি পেয়েছেন। নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তিনি বললেন, “অন্য ধর্মগ্রন্থের মতো রামায়ণও খুব সুন্দর। রামায়ণেও লুকিয়ে রয়েছে শান্তি আর ভ্রাতৃত্বের বাণী। এর লেখনীও খুব সুন্দর, আমি অনুবাদ করার সময় আমি মানসিকভাবে শান্তি পেয়েছি।” একই সাথে তিনি বললেন, “কিছু মানুষ আছেন যারা ধর্মের নামে উসকানি দিয়ে হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করেন। কোনও ধর্মই একে অপরকে ঘৃণা করতে শেখায় না। প্রত্যেকেরই উচিত প্রত্যেক ধর্মকে সম্মান জানানো।” তাঁর মতে সব ধর্মের মানুষেরই উচিত অন্য ধর্মকে বোঝা। মুসলিমরা যাতে রামচন্দ্র সম্পর্কে জানতে পারেন তা নিশ্চিত করতেই রামায়ণ অনুদিত করার বিষয়ে তিনি উদ্যোগ নেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!