এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার উদয়নারায়নপুরে বিজেপি কর্মীকে হত্যা করে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

এবার উদয়নারায়নপুরে বিজেপি কর্মীকে হত্যা করে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে


2011 সালের আগের পুনরাবৃত্তিই যেন বর্তমানে ঘটতে চলেছে বঙ্গ রাজনীতিতে। লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি হওয়ার পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক হিংসা এবং সংঘর্ষের ঘটনায় বিজেপি কর্মীদের মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। অনেকে বলছেন, নির্বুদ্ধিতা এবং হতাশা যখন শাসক শ্রেণীকে গ্রাস করে, তখনই এই ধরনের হিংসার ঘটনা ঘটতে শুরু করে। সম্প্রতি সন্দেশখালির ভাঙিপাড়া গ্রামে বিজেপি কর্মীদের মৃত্যু রাজ্য রাজনীতিতে আলোড়ন তুলে দিয়েছে। যা নিয়ে জলঘোলাও কম হয়নি।

এদিকে এরই মাঝে এবার উদয়নারায়ণপুরের সরপোতা গ্রামে ফের এক বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল। জানা গেছে, নিজের সাইকেল দোকানের পেছনের ফাঁকা জমি থেকে গলায় গামছার ফাঁস লাগানো একটি মৃতদেহ উদ্ধার হয় উদয়নারায়নপুর বিধানসভার 248 নম্বর বুথের বিজেপির সভাপতি ভাস্কর দোলুইয়ের দাদা সমতুল দলুইয়ের। কিন্তু কি কারণে খুন হতে হল বিজেপির সক্রিয় কর্মী বলে পরিচিত এই সমতুল দলুইকে?

এলাকার সূত্রের খবর, জয় শ্রী রাম বলাই ছিল তার অপরাধের কারণ। আর সেই কারণেই শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের রোষে প্রাণ হারাল এই রাজনৈতিক কর্মী। বস্তুত, গত শনিবার এই সরপোতা গ্রামে একটি পূজার উপলক্ষে রবিবার রাতে সেখানে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। আর সেই অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য বিজেপি কর্মী সমতুল দোলুই রাতে তার দোকানেই থেকে গিয়েছিলেন। আর রাতে যখন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলছিল, সেখানে এই বিজেপি কর্মী একাধিকবার জয় শ্রীরাম স্লোগান দিলে তার সাথে তৃণমূলের কর্মীদের প্রবল বচসা বাঁধে। আর গোটা বিষয়টি সেই সময় মিটে গেলেও সোমবার সকালে চায়ের দোকানে বসে বিজেপি কর্মী সমতুল দোলুই ফের জয় শ্রীরাম স্লোগান দিতে থাকেন।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এরপর থেকে সেইভাবে এই সমতুল দোলুইকে এলাকায় দেখা যাচ্ছিল না। পরবর্তীতে দুপুরবেলায় তার সাইকেল দোকানের পেছনের একটি ফাঁকা জমির মধ্যে গলায় গামছার ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এদিকে বিজেপির এই সক্রিয় কর্মীর মৃত্যুর ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ গ্রামে আসলে উত্তেজিত জনতা দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রবল বিক্ষোভ দেখান। পরে পুলিশের আশ্বাসে তাদের বিক্ষোভ উঠে যায়। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে তাদের দলের সক্রিয় কর্মীকে এইভাবে খুন করায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। এদিন এই প্রসঙ্গে হাওড়া গ্রামীণ জেলা বিজেপির সভাপতি অনুপম মল্লিক বলেন, “শুধুমাত্র জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেওয়ার অপরাধেই আমাদের কর্মীকে তৃণমূল খুন করেছে।” তবে গোটা ঘটনাটিকে অস্বীকার করে মদ্যপ অবস্থায় বিবাদের জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানান উদয়নারায়নপুর তৃণমূল বিধায়ক সমীর পাঁজা।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলছেন, বিগত বাম আমলের শেষের দিকে যখন তৃণমূলের কর্মীদের খুন হওয়ার খবর আসত, ঠিক তখনই বামেদের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রীরা পারিবারিক বিবাদ এবং ব্যক্তিগত কারণেই এই খুন বলে দায় এড়িয়ে যেতেন। ঠিক একইভাবে বর্তমানে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির উত্থান ঘটায় এবং বিজেপির কর্মীরা খুন হওয়ায় রাজ্যের বর্তমান শাসক দলের নেতা, মন্ত্রীরা পারিবারিক বিবাদের কারণে ও ঝামেলার জন্যই এই খুন হচ্ছে বলে দায় এড়ানোর চেষ্টা করছেন। যা রাজ্য রাজনীতিতে স্বৈরাচারী শাসকের চরিত্র বলেই মনে করছে সমালোচক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!