এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আমন্ত্রণ পেয়েও শাসকদলের অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত দুই হেভিওয়েট সংসদ, বাড়ছে জল্পনা

আমন্ত্রণ পেয়েও শাসকদলের অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত দুই হেভিওয়েট সংসদ, বাড়ছে জল্পনা

আমন্ত্রিতদের তালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও তৃণমূল পরিচালিত পুরবোর্ডের অনুষ্ঠানে হাজির থাকতে দেখা গেল না কংগ্রেসের দুই সাংসদকে। ইংরেজবাজার পুরসভার আইটিআই মোড়ে ধ্বনি সহ রঙিন ফোয়ারার উদ্বোধণে  অতিথি অভ্যাগতদের ভীড়ে গমগম করছিল চত্বর। সবাই ব্যস্ত ছিল অনুষ্ঠান নিয়ে। কিন্তু অনুষ্ঠান শেষ হয়ে গেলেও কংগ্রেসের দুই সাংসদ আবু হাসেম চৌধুরী এবং মৌসম নুরকে দেখা গেল না অনুষ্ঠানে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে মালদহের রাজনৈতিকমহলে।

এবারের ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে মালদহে নজিরবিহীন খারাপ ফলাফল করেছে কংগ্রেস। জেলা পরিষদ তো বটেই,এমনকী পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতিতেও তৃণমূলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে কংগ্রেস। কংগ্রেসের দলীয় অন্দরের খবর থেকে জানা গিয়েছে, সংখ্যালঘুরা বরাবরই মালদহে সমর্থন করে এসেছে কংগ্রেসকে। কিন্তু এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে সংখ্যালঘুদের ভোটগুলোও কব্জা করে নিয়েছে তৃণমূল। ফলত ভরাডুবি অবস্থার শিকার কংগ্রেস। জেলা কংগ্রেসের সাংগঠনিক শক্তিতেও এর খারাপ প্রভাব পড়ে।  এরকম পরিস্থিতিতে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কোলকাতায় গিয়ে দেখা করে আসেন আবু হাসেম খান চৌধুরী ওরফে ডালু। তারপর রাজনৈতিক স্তরে জোর চর্চা শুরু হয় ডালু এবং মৌসম দল বদল করছেন।

পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করতে তৃণমূলের হাত ধরছে। এই জল্পনাকেই ইন্ধণ যোগাতে তৃণমূল পরিচালিত পুরসভার অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয় ডালু এবং নুরকে। পুরসভার সার্ধ শতবর্ষ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়কে সাজানো হয়। সাজানো হয় আইটিআই মোড়কে। সন্ধ্যে সাতটাকে উদ্বোধণের নির্ধারিত সময় করা হয়েছিল। আমন্ত্রিত কংগ্রেস সাংসদদের জন্য এক ঘন্টা অপেক্ষাও করা হয়েছিল। তারপর তাঁদের আসার কোনো খবর না পেয়ে উদ্বোধণ কর্মসূচি সম্পন্ন করে নেন পুরপ্রধান এবং উপ পুরপ্রধান। সাংসদ হিসাবে আমন্ত্রণ জানানো হলেও ওঁনারা অনুষ্ঠানে আসেননি,এমনটাই বক্তব্যে জানালেন উপ পুরপ্রধান দুলাল সরকার।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে,অনুষ্ঠানে উপস্থিত না হতে পারার কারণ হিসাবে নিজেদের ব্যস্ততাকেই তুলে ধরলেন কংগ্রেসের দুই সাংসদ। তবে সত্যিই কি ব্যস্ততার কারণে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেননি তাঁরা? নাকি এর নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ আছে? প্রশ্ন দানা বাঁধছে মালদহের রাজনৈতিক দলগুলোর অন্দরে।

Top
error: Content is protected !!