এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দলনেত্রীর নির্দেশকে বুড়ো আঙুল! গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে দলীয় সংসদ ‘কাক’ হলেন হেভিওয়েট মন্ত্রীর কটাক্ষে!

দলনেত্রীর নির্দেশকে বুড়ো আঙুল! গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে দলীয় সংসদ ‘কাক’ হলেন হেভিওয়েট মন্ত্রীর কটাক্ষে!

গোষ্ঠী কোন্দল কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না শাসকদলের। এদিকে বছর ঘুরলেই লোকসভা ভোট – রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু বহুদিন আগেই সাফ নির্দেশ দিয়ে দিয়েছেন গোষ্ঠী কোন্দল রোখার। এমনকি রীতিমত হুঁশিয়ারি দিয়ে জানিয়েছেন, গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অভিযুক্তদের ক্ষমতার পরোয়া না করেই দল থেকে ছাঁটাই করতে তিনি দুবার ভাববেন না।

লোকসভা ভোটের প্রস্তুতির জন্যে জেলা এবং ব্লক স্তরে সভা করে একই নির্দেশ দিয়ে নেত্রী বলেছেন দলীয় সংগঠনকে মজবুত করতে। দলনেত্রীর নির্দেশকেই বারবার কর্মী-সমর্থকদের মনে করিয়ে দিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্যস্তরের শীর্ষ নেতৃত্বরাও – তবুও ফলাফল শূন্য। এখনো গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত শাসকদল। যার প্রমাণ আবারো দিয়ে গেলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। তিনি এদিন নাম না করেই দলীয় সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়কে কটাক্ষ করে বললেন,”কাক ময়ূরপুচ্ছ লাগালে কি ময়ূর হয়ে যায়? কাক কাকই থাকে। দু’দিন পর ময়ূরপুচ্ছ ঝরে যাবে। আর কাকের আসল চেহারা বেরিয়ে আসবে”!

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

দলীয় সূত্রের খবর, গত ৯ বছর ধরে কোচবিহারে নায়েব আলি স্মরণ সমিতির উদ্যোগে নাটাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন এলাকায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। পার্থপ্রতিম রায় এবং রবীন্দ্রনাথ ঘোষের যৌথ উদ্যোগেই এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। কিন্তু সাংসদ হওয়ার পর থেকেই পার্থপ্রতিম রায়ের সঙ্গে মনোমালিন্য শুরু হয় রবীন্দ্রনাথ ঘোষের। এই মনোমালিন্য শেষে বিরোধের রূপ নেয় – এই কারণেই এবছর পৃথকভাবে অনুষ্ঠান করছেন সাংসদ এবং মন্ত্রী।

২২-২৪ ডিসেম্বর সাংসদের অনুষ্ঠান হয়ে গিয়েছে। এরপর মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের উদ্যোগে তিন দিনের অনুষ্ঠান শুরু হল। সেই অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যেই গতকাল সাংবিধানিক বৈঠক করেন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। সেখানে সাংসদের অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে তাকে প্রশ্ন হলে পরোক্ষভাবে পার্থপ্রতিম বাবুকে কটাক্ষ করে তিনি ‘ময়ূরপুচ্ছ’ ও ‘কাকের’ প্রসঙ্গের অবতারণা করেন! একই দলে থেকে একজন মন্ত্রীর দলীয় সাংসদের বিরুদ্ধে এহেন কটু মন্তব্যের কারণে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়ল তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। তবে এ নিয়ে সাংসদের তরফ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!