এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিকৃত ইতিহাস শিখে বড় হচ্ছে স্কুলপড়ুয়ারা, স্বীকার পার্থর, সংশোধনের আশ্বাস দিয়ে কমিটি গঠন

বিকৃত ইতিহাস শিখে বড় হচ্ছে স্কুলপড়ুয়ারা, স্বীকার পার্থর, সংশোধনের আশ্বাস দিয়ে কমিটি গঠন

বেশ কিছুদিন ধরেই সরকার অনুমোদিত পাঠ্যবইগুলিতে তথ্যবিকৃতি নিয়ে বিরোধীরা অভিযোগ তুলে আসছিল।সিঙ্গুর আন্দোলনকে ইতিহাসের অন্তর্ভুক্ত করা, বেচারাম মান্নাকে ঐতিহাসিক চরিত্র হিসেবে তুলে ধরা থেকে শুরু করে মুখ‍্যমন্ত্রীর কবিতা সরাসরি সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করার পর থেকেই সিলেবাস নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল।বিরোধীদের তরফে প্রতিবাদও অনেকদিন ধরেই করা হচ্ছে।

কিন্তু বিরোধীরা যতই সরব হোক তৃণমূল সরকারের কাছে তা ধোপে টেকে নি। তৃণমূলের দাবি ছিল যে এই ধরণের কোনো ত্রুটি সরকার অনুমোদিত পাঠ্যপুস্তকে নেই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

 

কিন্তু, গতকাল বিধানসভায় বিরোধী দল বামফ্রন্ট এই প্রসঙ্গটি পুনরায় উত্থাপন করলে এবং অষ্টম শ্রেণীর ইতিহাস বই ‘অতীত ও ঐতিহ্য ‘-এ উল্লেখিত স্বাধীনতা সংগ্রামী ক্ষুদিরাম বসু, প্রফুল্ল চাকী প্রমুখ স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ‘বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদ’ আখ্যা দেওয়া হয়েছে আর এই অংশটিকে নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন বর্ধমানের পূর্বস্থলী উত্তরের বিধায়ক প্রদীপ সাহা । তিনি বিধানসভায় বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় দৃষ্টি আকর্ষণ করেন । শিক্ষামন্ত্রী এই মারাত্মক ত্রুটির কথা স্বীকার করে নিতে বাধ্য হন।

তিনি জানান এই ব্যাপারে তদন্তের জন্য শিক্ষাবিদ জীবন মুখোপাধ্যায় -এর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হবে,সেই কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী পুস্তকের এই ত্রুটি সংশোধন করা হবে।

পূর্বস্থলী উত্তরের সিপিএম বিধায়ক প্রদীপ সাহা জানান এর আগেও তিনি এই ত্রুটির ব্যাপারটি বিধানসভায় সরকারের দৃষ্টিগোচর করেছিলেন কিন্তু তৃণমূল সরকার তখন এ ব্যাপারে কর্ণপাত করেন নি।কিন্তু কাল সংসদে পার্থবাবু জানান যে,এই ত্রুটি ভবিষ্যতে যাতে আর না হয়, সে ব্যাপারে কমিটির উপর দায়িত্ব দেওয়া হবে।সাথে এও জানান সরকারি স্কুলগুলিতে কোনো বিষয়ের পাঠ্যপুস্তক চালু করার আগে তা সরকার খতিয়ে দেখে তবে অনুমোদন দেবে।

Top
error: Content is protected !!