এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > ঘুরে দাঁড়াতে হবে মুকুল- অর্জুনের গড়ে! উদ্ধার করতে হবে মতুয়া ভোট! বড়সড় পদক্ষেপ শাসকদলের

ঘুরে দাঁড়াতে হবে মুকুল- অর্জুনের গড়ে! উদ্ধার করতে হবে মতুয়া ভোট! বড়সড় পদক্ষেপ শাসকদলের

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধী নেত্রী থাকার সময় মতুয়া ভোটব্যাঙ্ক নিজেদের দিকে আনার চেষ্টা করেছিলেন। তাতে অনেকটা সাফল্যও পেয়েছিলেন তিনি। প্রথমদিকে মতুয়া পরিবার শুধুমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের রং থাকলেও, যত দিন যায় ততই সেখানে দাপট বারে গেরুয়া শিবিরের। প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতা বালা ঠাকুরের ভাইপো শান্তনু ঠাকুরের নেতৃত্বে সেখানে উত্থান হয় ভারতীয় জনতা পার্টির।

মতুয়া ভোট অন্যতম ফ্যাক্টর যে কেন্দ্রে, সেই বনগায় এবার জয়লাভ করেন বিজেপির হয়ে লড়াই করা শান্তনু ঠাকুর। হেরে যান তৃণমূলের টিকিটে দাঁড়ানো মমতাবালা ঠাকুর। তবে শুধু বনগাঁ নয় উত্তর 24 পরগনার হেভিওয়েট লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে ব্যারাকপুরেও বিজেপির অর্জুন সিংহের কাছে হেরে যেতে হয় তৃণমূল কংগ্রেসকে। আর এহেন পরিস্থিতিতে লোকসভার পর নিজেদের ভোটব্যাঙ্ক মেরামতি করতে ময়দানে নামেন উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।

ইতিমধ্যেই জেলার বিভিন্ন পৌরসভা, যেগুলো লোকসভা নির্বাচনের পরে বিজেপির দখলে চলে গিয়েছিল, তা ফের নিজেদের দখলে আনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এবার মতুয়া ভোটব্যাংককে নিজেদের দিকে রাখতে কৌশলী পদক্ষেপ নিচ্ছে ঘাসফুল শিবির। সূত্রের খবর, সম্প্রতি উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে একটি কোর কমিটির বৈঠক করা হয়। যেখানে বনগাঁ এবং ব্যারাকপুরে লোকসভায় হারিয়ে যাওয়া ভোটব্যাংক কিভাবে ফেরত পাওয়া যাবে, তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে বলে খবর।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, এই বৈঠকের পরেই এই দুই লোকসভার অন্তর্গত সমস্ত বিধানসভায় একটি করে কমিটি গঠন করে দেয় তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে বনগাঁর ওই কমিটিতে রাখা হয়েছে মতুয়া পরিবারের সদস্য তথা প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতাবালা ঠাকুরকে। তবে একা মমতাবালা ঠাকুরের উপরে ভরসা রাখতে চাইছে না তৃণমূল কংগ্রেস। তার সাথে এলাকার অনেকে হেভিওয়েট নেতা এবং বিধায়কদেরও সেই কমিটিতে রাখা হচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর মূল লক্ষ্য আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। বর্তমানে এনআরসি ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রচার করে তিন উপনির্বাচনে জয় পেয়েছে তৃণমূল। আর এই পরিস্থিতিতে মতুয়া সমাজের মধ্যে ভালো করে এনআরসির বিরুদ্ধে প্রচার করতে চাইছে ঘাসফুল শিবির। তাই কমিটি করে মতুয়া সমাজ যেভাবে লোকসভায় বিজেপিকে ভোট দিয়েছে, তা যাতে এবার তাদের দিকে আসে, তার জন্যই তৃণমূলের এই পদক্ষেপ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “এই লোকসভার অন্তর্গত সমস্ত বিধানসভার বিধায়ক ছাড়াও অন্যান্য নেতাদের নিয়ে একটা কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি স্বাধীনভাবে কাজ করবে।” তবে ঘটা করে কমিটি তৈরি হলেও, তৃণমূলের লোকসভায় হারিয়ে যাওয়া মতুয়া ভোট ফেরত আসে কিনা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!