এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “শোভনকে মিস করছেন”হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী , জোর গুঞ্জন

“শোভনকে মিস করছেন”হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী , জোর গুঞ্জন

ইতিপূর্বে দেবশ্রী রায়ের ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছিল। কিন্তু শেষমেশ তার গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো রায়দিঘির বিধায়িকার। কিন্তু এবার নিজের বিধানসভা এলাকায় ঢুকতে পারছেন না বলে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে অভিযোগ করলেন দেবশ্রীদেবী। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বিধানসভায় গিয়ে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে রায়দিঘির বিধায়িকা একরাশ অভিযোগ জানান।

তিনি বলেন, “তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় ঢুকতে পারছেন না। কারণ ইতিমধ্যেই সেই এলাকা থেকে তার কাছে কতগুলো হুমকি ফোন এসেছে।” হুমকির ব্যাপারে সাংবাদিকদের তরফ থেকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, লোকজন তাকে ফোন করে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। শুধু তাই নয়, তার কাছ থেকে টাকা ফেরত চাওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। কিন্তু রায়দিঘির বিধায়ক স্পষ্ট বলেন, তিনি কারও কাছ থেকে টাকা নেননি। তবে এদিন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা বিধায়িকা দেবশ্রী রায় বিজেপির শোভন চট্টোপাধ্যায়কে মিস করার কথাও উল্লেখ করেন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কোনো রকম রাখঢাক না রেখেই তিনি বলেন, “শোভনদাকে খুব মিস করছি।” স্বাভাবিকভাবেই তার এই কথা শুনে সাংবাদিকদের মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। কারণ ইতিপূর্বে যখন শোভনবাবু ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ার জন্য দিল্লিতে বিজেপি সদর দপ্তরে গিয়েছিলেন, সেদিনই কার্যত ভারতীয় জনতা পার্টিতে দেবশ্রী রায় যোগ দিতে চেয়েছিল বলে খবর ছড়িয়েছিল। পাশাপাশি বিজেপি সূত্র থেকে এটাও জানা গিয়েছিল যে, শোভনবাবুর তীব্র আপত্তির কারণে দেবশ্রী রায়কে ভারতীয় জনতা পার্টিতে নেওয়া হয়নি।

কাজেই সহজভাবেই অনুমেয় বিষয় যে, অভিনেত্রী তথা বিধায়িকা দেবশ্রী রায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সম্পর্কে যথেষ্ট তিক্ততা রয়েছে। তবুও এদিন সহজ ভাবেই দেবশ্রী রায় বলেন, “নেতা হিসাবে ওনাকে মিস করছি। যখন যা সমস্যার কথা বলেছি, সঙ্গে সঙ্গে সমাধান করে দিয়েছেন। এখন তো আর কেউ নেই। তাই দিদিকেই বললাম।” বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, দেবশ্রী রায়ের এইভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শরণাপন্ন হওয়ার রাজনৈতিক গুরুত্ব যথেষ্ট রয়েছে।

ইতিপূর্বে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে অনেক বিধায়ক এবং নেতা ভারতীয় জনতা পার্টিতে চলে গেলেও বর্তমানে সকলের ক্ষেত্রেই প্রায় ঘরে ফেরার আবহাওয়া তৈরি হয়েছে। এই সময় বিজেপিতে যোগদান করতে চেয়েছিলেন বলে দেবশ্রী রায়ের নামে যে খবর সংবাদমাধ্যমের ছড়িয়েছিল, তার জেরেই হয়ত রায়দিঘি বিধানসভা এলাকায় দেবশ্রীর প্রতি ক্ষোভ বিক্ষোভ জন্ম নিয়েছে। তাই একমত দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে দুই সমস্যারই সমাধান করতে চাইলেন রায়দিঘির বিধায়িকা দেবশ্রী রায় বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!