এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > পুজোর মধ্যেই দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে গুলিতে তৃণমূল নেতাকে ঝাঁঝরা করে দিল দুষ্কৃতীরা

পুজোর মধ্যেই দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে গুলিতে তৃণমূল নেতাকে ঝাঁঝরা করে দিল দুষ্কৃতীরা

লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক সংঘর্ষ ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে ঘরের মেয়ে উমা যখন কৈলাশ থেকে মর্তে আসছেন, যখন উৎসবে মধ্যে থাকবে প্রতিটি বাঙালি, ঠিক তখন বাংলার রাজনৈতিক সংঘর্ষ যাতে না হয়, তার জন্য প্রার্থনা করেছিলেন প্রত্যেকেই। প্রত্যেকেই আশাবাদী ছিলেন যে, দল-মত-নির্বিশেষে হয়ত বা বাংলার সবথেকে প্রিয় উৎসবকে এবার ভালোমতই পালন করবেন সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বরা। কিন্তু তা আর হল না!

পুজোর মধ্যেও গুলির আওয়াজে উত্তপ্ত হতে দেখা গেল পাঁশকুড়াকে। সূত্রের খবর, গত মহানবমীর রাতে বাইক করে 7 জন দুষ্কৃতী পাঁশকুড়ার মাইসোর বাজার এলাকায় তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে উপস্থিত হয়। তখন তৃণমূলের ওই কার্যালয়ে প্রায় 5-6 জন কর্মী ছিলেন। অন্যদিকে প্রতিদিনের মতো এদিনও মাইসোর বাজারে নিজের অফিসে বসেছিলেন পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি কুরবান শাও।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

আর এদিন 7 জন দুষ্কৃতী তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে বন্দুক বের করে, কিছু বুঝে ওঠার আগেই পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতিকে লক্ষ্য করে প্রায় ছয় রাউন্ড গুলি চালায় বলে স্থানীয় সূত্রের খবর। আর এরপরই রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন সেই কুরবান শাও। কিন্তু পুজোর দিনে কেন এইভাবে খুন হতে হল তৃণমূল নেতাকে! এখন তা নিয়েই ক্রমশ ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য। ব্যক্তিগত শত্রুতা, নাকি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জন্যই এই ঘটনা ঘটল, তা খতিয়ে দেখার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

তবে এখনও পর্যন্ত খুনের কারণ কিনারা করা যায়নি। পাশাপাশি অভিযুক্তদেরও এখনও ধরতে পারেনি পুলিশ। সব মিলিয়ে পুজোর মধ্যে মহানবমীর দিনে তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতিকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনায় এখন তীব্র উত্তেজনা পাঁশকুড়ার। যা নিয়ে শুরু হয়েছে তীব্র রাজনৈতিক চাপানউতোর। এলাকা জুড়ে চাপা উত্তেজনা আগামী দিনে এই নিয়ে দ্বন্দ্ব আরও বাড়াতে পারে বলে স্থানীয় রাজনৈতিক মহলের ধারণা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!