এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল যে এখন ‘টলোমলো জাহাজ’ মেনে নিচ্ছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রীর বিশ্বস্ত সৈনিক

তৃণমূল যে এখন ‘টলোমলো জাহাজ’ মেনে নিচ্ছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রীর বিশ্বস্ত সৈনিক

বাংলায় এবার পাপড়ি মেলতে শুরু করেছে পদ্মশিবির – তৃণমূল নেত্রীর ৪২ এ ৪২ করে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্নকে কার্যত ধুলোয় মিশিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির ছিনিয়ে নিয়েছে ১৮ টি আসন। আর তারপরেই কার্যত শাসকদলের নেতাদের লাইন লেগে গেছে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে। যে মুকুল রায়কে এতদিন ‘গদ্দার’ বা ‘মীরজাফর’ বলে তীব্র আক্রমন করতেন তৃণমূল নেতারা, তাঁরাই এখন ফোন করে মুকুল রায়ের হাত ধরে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে ব্যস্ত।

ফলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা আগেই জানিয়েছিলেন কঠিন সময় আসতে চলেছে শাসকদলের সামনে। কিন্তু, অত্যুৎসাহী তৃণমূল সমর্থকরা সেটা মানতে রাজি ছিলেন না। তাঁদের বক্তব্য ছিল, কিছু আসন বিজেপি পেলেও ২০১৪ এর তুলনায় ভোট বেড়েছে তৃণমূলের। এখনও এগিয়ে ১৬৪ টি বিধানসভায়, তার উপরে লোকসভা ভোট হয়েছে মোদিকে দেখে। কিন্তু, বিধানসভা ভোট হবে দিদিকে দেখে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আর তাই নাকি ফল খারাপ হলেও ভেঙে পড়ার মত কিছু হয় নি! কিন্তু এই অত্যুৎসাহী তৃণমূল সমর্থকদের কাছে বড় ধাক্কা হিসেবে নেমে এল তাঁদের প্রিয় দিদির অন্যতম অনুগত সৈনিক ফিরহাদ হাকিমের বক্তব্য। দলকে চাঙ্গা করতে গিয়ে দলবদলুদের প্রসঙ্গে তিনি বক্তব্য রাখেন, কিন্তু সেখানেই তিনি তাঁর দলকে ‘টলোমলো জাহাজের’ সঙ্গে তুলনা করে বসেন। ফলে বিরোধীরা বলতে শুরু করেছে, তৃণমূল যে বাস্তবিকই কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে তা তো দলের শীর্ষনেতাই ফাঁস করে দিচ্ছেন!

প্রসঙ্গত, দলবদলুদের প্রসঙ্গে নিজের প্রতিক্রিয়ায় ফিরহাদ হাকিম সংবাদমাধ্যমকে জানান, যখন ঝড়ের মুখে জাহাজ একটু টলমল হলে প্রথমে ইঁদুররাই লাফ দেয় জাহাজ থেকে। কিন্তু ইঁদুররা জানে না তারা লাফ দিচ্ছে সমুদ্রের সেই অথৈ জলে, যেখানে তলিয়ে যাবে। তাই যে ইঁদুরগুলো লাফ দিচ্ছে তারা জানে না যে ভবিষ্যতে জলে ডুবে মরা তাদের ছাড়া পরিত্রাণ নেই। যাঁরা আজকে এগুলো করছেন তাঁরা কোনও না কোনও চাপের মুখেই করেছেন। যাঁরা দল ত্যাগ করছেন, মুকুল রায়ের চাপেই করছেন। কোনও চাপের মুখে মাথা নত করা এটা কোনও পৌরুষের কাজ নয়, মনুষ্যত্বের কাজ নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!