এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > পাল্টা সভায় বিজেপিকে গুনে গুনে ‘তিন গোল’ দিল তৃণমূল

পাল্টা সভায় বিজেপিকে গুনে গুনে ‘তিন গোল’ দিল তৃণমূল

দুদিন আগে হাওড়ার উলুবেড়িয়ার কুলগাছিয়ায় বিজেপি এক সভা করে, সেখানে জনসভায় ভিড় দেখে উত্‍ফুল্ল ছিল বিজেপি নেতৃত্ত্ব কেননা বিজেপি বছর খানেক আগেও উলুবেড়িয়াতে জনসভা করার মতো লোক পেত না। কিন্তু সভার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই একই মঞ্চে সভা করে তৃণমূল কংগ্রেস দেখিয়ে দিল বাংলার জনসমর্থন এখনো কার দিকে রয়েছে। বিজেপির দাবি ছিল তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ব্যতিব্যস্ত হয়ে উলুবেড়িয়ার মত সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকাতেও প্রবলভাবে বাড়ছে তাদের জনসমর্থন।
কিন্তু শাসকদলের পক্ষে কার্যত ওই সভার পর চ্যালেঞ্জ জানানো হয়। কুলগাছিয়ায় মুকুল রায় সভা করে যাওয়ার পর হাওড়া জেলা তৃণমূল গ্রামীণ সভাপতি পুলক রায় ঘোষণা করেছিলেন, বিজেপি দলের শীর্ষনেতৃত্বকে হাজির করে যে জমায়েত করেছে, আমরা দলের শীর্ষ নেতৃত্ব ছাড়াই শুধু জেলা নেতৃত্বকে এনে তাঁর দ্বিগুণ জমায়েত করব। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায়, দ্বিগুণ নয়, বিজেপির সভার তিনগুণ জমায়েত হয়েছে (আর তাই স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ত্বের দাবি বিজেপিকে গুনে গুনে তিন গোল দেওয়া হল)। হাওড়ার দুই মন্ত্রী অরূপ রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, হুগলির মন্ত্রী অসীমা পাত্র ও দুই জেলার সাংসদ ও বিধায়কদের নিয়েও বিপুল জনসমাবেশ করে দেখিয়ে দেয় হাওড়া জেলা গ্রামীণ তৃণমূল। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ত্বের দাবি, দল থেকে ছিটকে যাওয়া কজন কর্মীকে দলে নিয়ে একটু ভিড় দেখিয়েই বিজেপি মনে করছে হাতে চাঁদ পেয়ে গিয়েছে, কিন্তু আসলে জনসভায় কত লোক হতে পারে সেই অভিজ্ঞতা তো নেই ওঁদের, তাই সামান্য ভিড় দেখেই মনে করছে, অনেক মানুষ তাঁদের সঙ্গে এসে গিয়েছে। তা যে নিতান্তই নগন্য, সেটা বুঝিয়ে দিতেই এই জনসভা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!