এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > পঞ্চায়েতে ভোট চুরি হয়েছে, লোকসভাতেও হবে – অভিষেকের গড়ে দাঁড়িয়ে হুমকি তৃণমূল নেতার

পঞ্চায়েতে ভোট চুরি হয়েছে, লোকসভাতেও হবে – অভিষেকের গড়ে দাঁড়িয়ে হুমকি তৃণমূল নেতার

বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় বিজেপি-বাম-কংগ্রেস সহ সম্মিলিত বিরোধীরা দাবি করেছিলেন – পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনের নামে প্রহসন হয়েছে। রাস্তায় উন্নয়ন বাহিনী দাঁড় করিয়ে মনোনয়ন জমা দিতে দেওয়া হয় নি বিরোধীদের। এমনকি, ভোটার দিন বা গণনার দিন তৃণমূল কংগ্রেসের ক্যাডাররা বাংলার মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করেছে – বাংলায় গণতন্ত্র বলে কিছু অবশিষ্ট নেই। অবশ্য এই কথার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল নেতাদের তো বটেই স্বয়ং তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘সাফাই’ ছিল – বাংলায় তৃণমূলের উন্নয়ন দেখে নাকি বিরোধীদের হয়ে দাঁড়াবার মত প্রার্থীই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। আর তাই ‘মুখ বাঁচাতে’ বিরোধীরা ‘কুৎসা’ রটাচ্ছে!

তবে, লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে তৃণমূল কংগ্রেসের সেই উন্নয়নের ফানুস ফুটো করে বিরোধীদের তোলা ভোটলুটের তত্ত্বকেই মান্যতা দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের দাপুটে নেতা তথা দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শ্রীমন্ত বৈদ্য। তৃণমূল কংগ্রেসের ‘ভোটচুরির’ কথা থেকে শুরু করে কিভাবে বিরোধীদল করলে পুলিশ দিয়ে শাসকদল ‘দেখে নেয়’ খোদ শাসকদলের অঘোষিত দুনম্বর নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গড় ডায়মন্ড হারবারে দাঁড়িয়ে সব কিছুই ফাঁস করে দিলেন শ্রীমন্তবাবু। আর সেই বিস্ফোরক ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পর রীতিমত শোরগোল পরে গেছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

ডায়মন্ডহারবার লোকসভা কেন্দ্রের অধীন বজবজ-২ ব্লকের কামরা অঞ্চলে ডায়মন্ডহারবারের তৃণমূল প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে নির্বাচনী প্রচারে রাখা পূর্ত কর্মাধ্যক্ষর এমন বক্তব্য ভিডিও আকারে সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে গিয়েছে। যে ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে শ্রীমন্তবাবু হুমকি দিচ্ছেন – তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বিরোধী দলের হয়ে ভোটে কাজ করলে, পোলিং এজেন্ট হয়ে ভোট কেন্দ্রে বসলে, তাঁদের দেখে নেওয়া হবে। পাশাপাশি ফল বেরবার পর বিরোধী দলের হয়ে যারা কাজ করবে, তাদের ছবি দেখে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে মাপা হবে বলেও প্রকাশ্য জনসভায় শাসিয়েছেন তিনি। এমনকি কেন্দ্রীয় বাহিনী কিছু করতে এলে তাদেরও যে ছেড়ে দেওয়া হবে না তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন এই তৃণমূল নেতা।

একই সঙ্গে ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে এই তৃণমূল নেতা ফাঁস করছেন কিভাবে পঞ্চায়েত ভোটে সাধারণ মানুষের ভোট চুরি করা হয়েছিল! তাঁর যুক্তি অবশ্য, সাধারণ মানুষের ভোট চুরি করে নি তৃণমূল – কিন্তু যারা তৃণমূলের উন্নয়ন দেখতে না পেয়ে বিরোধী দলের হয়ে নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন সেইসব ‘বেইমানের’ ভোট ‘বেইমানি’ করে নিয়েছে তৃণমূল। আর দরকার পড়লে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ‘বেইমানি’ করে কেউ যদি বিরোধী ভোটবাক্সে ভোট দেয় – তাহলে আবার তাদের ভোট ‘বেইমানি’ করে নিয়ে দেখিয়ে দেবেন এই তৃণমূল নেতা। তৃণমূলের ভোট রাজনীতির ঠিক কোন কোন দিক ফাঁস করলেন এই তৃণমূল নেতা? দেখে নিন নিচের ভিডিওতে –

Top
error: Content is protected !!