এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > পঞ্চায়েতের বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষকে মারধর করে পুলিশের জালে দলেরই অন্য গোষ্ঠীর ৮ নেতা

পঞ্চায়েতের বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষকে মারধর করে পুলিশের জালে দলেরই অন্য গোষ্ঠীর ৮ নেতা

দলেরই বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষকে মারধরে আভিযোগে গ্রেপ্তার হতে হল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বেশ কিছু কর্মীকে। সূত্রের খবর, গত রবিবার বিকেলে বর্ধমানের ভাতারের পলসোনা গ্রামে ভাতার থানার এসসি ও এসটি অ্যাক্টের একটি মামলা মীমাংসা করবার ব্যাপারে শেখ রেজাবুল হকের বাড়িতে যান পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ মানগোবিন্দ অধিকারী ও তাঁর অনুগামী মানোয়ার শেখ, আনারুল ইসলাম ও শৈলেশ্বর ঘোষ।

কিন্তু সেখানে পৌছোনোর আগেই তাঁরা খবর পান যে কুবরাজপুরের তেমাথা এলাকায় তাঁর কয়েকজন অনুগামীর সাথে দলেরই অপর একটি গোষ্টীর গন্ডগোল বেঁধেছে। সাথে সাথে তিনি সাথে থাকা তিন আনুগামীকে নিয়ে সেই ঘটনাস্থলে যান। অভিযোগ, এখানেও সেই পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ ও তাঁর অনুগামীদের ওপর হামলা চালায় বিরোধী গোষ্টীর লোকেরা। গুরুতর অবস্থায় আহত হয়ে তাঁরা প্রত্যেকেই বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি রয়েছেন বলে খবর।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই সেলিম শেখ, শেখ জাহিরুল হক, শেখ ইসমাইল, মানজার শেখ, শেখ আসগর আলি, অজিত ঘোষ, শেখ মোমিনুল হক ও কটা শেখ নামে বিক্ষুব্ধ গোষ্ঠীর আটজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের প্রত্যেকেরই বাড়ি ভাতার এলাকাতেই। এদিকে সোমবারই এই ধৃতদের আদালতে তোলা হলে আগামী ২ রা আগস্ট পর্যন্ত তাঁদের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বর্ধমান আদালতের ভারপ্রাপ্ত সিজেএম।

তবে বর্ধমানের ভাতারে যখন এরকম অবস্থা ঠিক তখনই এই জেলারই সরাইটিকরে জমি সংক্রান্ত গন্ডগোলের জেরে শেখ সামিম, আলেমা শেখ, পঙ্কজ ঘোষ ও কল্পনা ঘোষ নামে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদিন এদেরও আদালতে তোলা হলে বিচারক সেই বিচারবিভাগীয় হেফাজতেরই নির্দেশ দেন। সব মিলিয়ে গন্ডগোলে উত্তপ্ত বর্ধমান – আর যেহেতু দলেরই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে এইসব ঘটছে তাই তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!