এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ফের খুন তৃণমূল কর্মী, অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে,জেনে নিন বিস্তারিত

ফের খুন তৃণমূল কর্মী, অভিযোগের তীর বিজেপির দিকে,জেনে নিন বিস্তারিত

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই বিভিন্ন জায়গায় হামলা, সংঘর্ষ ও উত্তেজনার খবরে শিরোনামে উঠে এসেছে বঙ্গ রাজনীতি। কিন্তু এবার হামলা-সংঘর্ষকে ছাপিয়ে গিয়ে রাজনৈতিক সংঘর্ষে বলি হতে হচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মীদের। সম্প্রতি নিমতায় খুন হতে হয়েছে তৃণমূল নেতা নির্মল কুন্ডুকে। আর এবার ঈদের দিনে বুধবার কোচবিহারের দিনহাটায় প্রাণ হারাতে হল তৃণমূল কর্মী আসগর আলি ওরফে আজিজার রহমানকে।

তৃণমূলের দাবি, এই আজিজার রহমান ঈদের বাজার করতে বেরিয়েছিলেন। সেই সময়ই তাকে টেনে নিয়ে গিয়ে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা খুন করেছে। অন্যদিকে পাল্টা এই ব্যাপারে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বর জেরেই আজিজুর রহমান খুন হয়েছে বলে দাবি করেছে গেরুয়া শিবির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “সাড়ে ছটা পৌনে সাতটা নাগাদ দিনহাটার একটি গ্রামের তৃণমূল কর্মীকে বিজেপির হার্মাদ বাহিনি জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে গলা টিপে নৃশংস ভাবে হত্যা করেছে। পুলিশকে বলেছি যাতে অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া যায়। বিজেপি ও সিপিএম এক হয়ে বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি করছে।” কিন্তু যেখানে পুলিশ প্রশাসন রাজ্যের হাতে, সেখানে কেন এভাবে রোজ রোজ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মীরা খুন হচ্ছে! তাহলে কি এই দায় রাজ্য প্রশাসনের নয়?

এদিন এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি বলেন, “পুলিশ তো আর বাড়ি বাড়ি পাহারা দিতে পারে না। রাতের অন্ধকারে যদি কেউ কাউকে তুলে নিয়ে যায়, তাহলে কি করে হবে! অবিলম্বে এসব বন্ধ হওয়া উচিত। ঈদের আগে আন্দোলনে নামিনি। এবার রাস্তায় নেমে মিটিং, মিছিল করব।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে কোচবিহারের নব্য বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিককে ফোন করলেও ফোনে পাওয়া যায়নি।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, ভোটের আগে থেকেই তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এই কোচবিহারে এতটাই উত্তপ্ত পরিস্থিতি ধারণ করেছিল যে, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন নিশীথ প্রামাণিক। আর তারপরই তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে জয়লাভও করেন তিনি। কিন্তু এবার ভোটের ফলাফল মিটতে না মিটতেই ফের উত্তপ্ত হতে শুরু করল সেই কোচবিহার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!