এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপি-বাম-কং জোটকে উড়িয়ে 6-0 এর বড়সড় জয় তৃণমূলের! দাঁত ফোটাতে পারল না মিমও!

বিজেপি-বাম-কং জোটকে উড়িয়ে 6-0 এর বড়সড় জয় তৃণমূলের! দাঁত ফোটাতে পারল না মিমও!

লোকসভা নির্বাচনে সারা রাজ্যে বিজেপি হওয়া প্রত্যক্ষ করা গেলেও সদ্যসমাপ্ত রাজ্যের তিন বিধানসভা উপনির্বাচনে জয়লাভ করেছে ঘাসফুল শিবির। যেখানে এনআরসির বিরুদ্ধে লড়াই করে এবং সংখ্যালঘু মানুষের সমর্থন পেয়েই তৃণমূলের এই সম্ভব হয়েছে বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। কিন্তু 3 বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল ভালো ফল করলেও সম্প্রতি উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের ভোগ্রামে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

যে নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে ছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কেননা এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে যেমন নতুন দলের আত্মপ্রকাশ ঘটবে, ঠিক তেমনই বাংলার রাজনৈতিক সমীকরণ আরও স্পষ্ট হবে বলে মনে করেছিলেন তারা। জানা যায়, এই মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির নির্বাচনে বিজেপির তরফে কোনো প্রার্থী দিতে দেখা যায়নি। যেখানে তৃণমূলের তরফে অভিযোগ করা হয়েছিল, বাম এবং কংগ্রেসের জোট প্রার্থীকে বিজেপি তলায় তলায় সমর্থন করে তৃণমূলকে আটকাতে চাইছে।

তবে প্রথম থেকেই বিজেপির তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। অন্যদিকে এই নির্বাচনে আশ্চর্যজনকভাবে প্রথম বাংলায় কোনো প্রার্থী দিতে দেখা গেছে আসাদউদ্দিন ওয়াইসির দল মিমকে। যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা তৈরি হয়েছিল। একাংশ দাবি করেছিলেন, সংখ্যালঘুদের অন্যতম সংগঠন এই মিম। ফলে তারা অনেকদিন ধরেই বাংলায় তাদের সংগঠন খুলবে বলে জানিয়েছিল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিন্তু প্রথম থেকেই মিমের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি প্রত্যেক নেতা-নেত্রীকে জানিয়ে দিয়েছিলেন, এই সংগঠনের বিরুদ্ধে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে। কেননা তারা বিজেপির বি-টিম হিসেবেই পরিচিত। তবে এত কিছু করেও মিমকে আটকাতে পারেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উপনির্বাচনের পর হেমতাবাদের মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির নির্বাচনে প্রার্থী দেওয়া তৃণমূলের অনেকেরই ঘুম কেড়ে নিয়েছিল।

তবে শেষ পর্যন্ত এই মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির নির্বাচনে বড়সড় জয় পেল শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। সূত্রের খবর, 6 টি আসনের মধ্যে ছয়টি আসনেই জয়লাভ করেছে তারা। আর তাদের এই জয়ের পেছনে রাজনৈতিক অঙ্ক রয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অনেকে বলছেন, এনআরসি ইস্যু বর্তমানে বিজেপির বিরুদ্ধে গিয়েছে। আর তাই বিধানসভা উপনির্বাচন থেকে শুরু করে এই মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধেই ভোট পড়ল।

যার ফলে বিজেপি এখানে প্রার্থী না দিলেও জোট প্রার্থীরা কোনো সাফল্য পায়নি। অন্যদিকে সংখ্যালঘুদের মনজয় করতে অনেকটাই সক্ষম হবে মিম বলে অনেকে আঁচ করলেও, বাংলায় এখনও সংখ্যালঘুদের সমর্থন পেতে যে সামনের সারিতেই রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস, তা এই নির্বাচন থেকেই স্পষ্ট হয়ে গেল বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

তবে তিন বিধানসভা উপনির্বাচন বা এই মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির নির্বাচনে তৃণমূলের জয়জয়কার হলেও আসল বিধানসভায় কোনো রাজনৈতিক সমীকরণ বদলায় কি না, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের। বিশেষ করে, লোকসভা থেকে উপনির্বাচন সব জায়গাতেই প্রমাণিত তৃণমূলের বড় ভোটব্যাঙ্ক হল সংখ্যালঘুরা। সেখানে মিমের দাপটে ভোট ভাগাভাগি হলে কিন্তু অনেক অঙ্কই বদলে যেতে বাধ্য!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!