এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আলিপুরদুয়ার পুরসভা হারাবে তৃণমূল? হেভিওয়েট নেতার কথায় বাড়লো জল্পনা

আলিপুরদুয়ার পুরসভা হারাবে তৃণমূল? হেভিওয়েট নেতার কথায় বাড়লো জল্পনা

এসজেডিএর চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী ও শিলিগুড়ি পৌরসভার মেয়র অশোক ভট্টাচার্যের রাজনৈতিক তরজায় শিকেয় উঠল শিলিগুড়ির উন্নয়ন। কিন্তু হঠাৎ শাসক ও বিরোধী দলের দুই নেতার এই রাজনৈতিক তরজা কেন? জানা গেছে, শুক্রবার এসজেডিএর চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী বলেছিলেন, “শিলিগুড়ি পুরসভার উন্নয়নের কাজ করতে তিনি কোনও অনুমতি দেবেন না।” এরপরেই বিরোধীরা প্রশ্ন তোলে শুধুমাত্র বাম শাসিত কর্পোরেশন হওয়াতেই কি এধরনের বঞ্চনার শিকার হচ্ছে শিলিগুড়ি? তাই শনিবার সৌরভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে পাল্টা নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছেন মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। এদিন তিনি কার্যত সৌরভ চক্রবর্তীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, ” উনি শিলিগুড়ি পুরসভা দখল করা তো দূর অস্ত উল্টে নিজেদের পুরসভা সামলান। নাহলে দুদিন পর ওটাও নিজেদের হাতে নেব আমরা।” সূত্রের খবর, সম্প্রতি শিলিগুড়ি পুর এলাকার উন্নয়নে ঠিত কাজ না হওয়ায় নিজেরাই শিলিগুড়ির উন্নয়নের কাজ করবেন বলে জানান এসজেডিএর চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী।

 আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখার পাশাপাশি আজ শিলিগুড়ি পৌরসভার সমস্ত তৃনমূল কাউন্সিলর ও পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবের সাথে বৈঠক করার কথাও হয়েছে তাঁর। আর এতেই পুরসভার উন্নয়নে সৌরভবাবুর বিরুদ্ধে হস্তক্ষেপ করার অভিযোগ তোলেন মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। এখানেই শেষ নয়, সৌরভ চক্রবর্তীর আলিপুরদুয়ার পুরসভাতে তৃনমূলকে হারাতে এবার সেখানে নিজেই প্রচারে যাবেন বলে হুশিয়ারী দিয়েছেন এই বাম নেতা। আর অশোকবাবুর জবাবে সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, ” আলিপুরদুয়ারে নির্বাচন করতে তিনি আসতেই পারেন। কিন্তু রাজ্য সরকারের একটি সংস্থা যদি পুরসভার উন্নয়ন করে সেই ব্যাপারে ওনার এত আপত্তি কিসের। আর আলিপুরদুয়ার পৌরসভাতে তারা একটি আসনেও জয়লাভ করতে পারবে না।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য আলিপুরদুয়ার পৌরসভাতে বামফ্রন্ট এর আগে একক ভাবে পুরবোর্ড গঠন করতে পারেনি। কংগ্রেসের সাথে জোট করে তাঁরা ক্ষমতায় এসেছিল। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, পুরসভার নির্বাচনে মানুষ কোনো দলকে জেতায় শহরের উন্নয়ন করবার জন্য। এখন সেই উন্নয়ন করা নিয়েই শাসক ও বিরোধী দলের দুই নেতার এই দড়ি টানাটানির প্রভাব পুর নির্বাচনে পড়ে কি না সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!