এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে শাসকদলের ‘বিশেষ’ পরিকল্পনা

পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে শাসকদলের ‘বিশেষ’ পরিকল্পনা

২০১৯র লোকসভা নির্বাচনের আগে পঞ্চায়েত নির্বাচন যে তাদের কাছে পাখির চোখ তা ইতিমধ্যেই স্পষ্ট।শাসক ও বিরোধীদের জেলায় জেলায় প্রচার কর্মসূচি থেকে।পিছিয়ে নেয় তৃণমূলও।তাই কয়েকটি কর্মসূচিও নিয়েছে বলে জানা গেছে। এবং প্রচার কর্মসূচিকে সফল করতে তৃনমূলের তরফে বেশ কিছু নতুন প্রচার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।দলীয় সূত্রে জানা গেছে ,জানুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের ১৫তারিখের মধ্যে এই সম্মেলনগুলির কাজ শেষ করবে শাসক দল। দলীয় সূত্রে খবর ,কোর কমিটির বৈঠকে ইতিমধ্যেই সম্মেলনের দিন স্থির করা হয়েছে। নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহ জুড়ে কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন ব্যাঙ্কিং নীতির বিরুদ্ধে সরব হবে তৃনমূল। ব্লকে ব্লকে মিছিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাঁরা।কেন্দ্রের এই নীতিকে অস্ত্র করে বঙ্গে বিজেপির ভোট ব্যাঙ্কে ভাঙ্গন ধরাতে তৈরি শাসক দল।
তৃনমূলের অন্দরে গোষ্ঠী কোন্দলের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। সেই অভিযোগ গুলো কাটিয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে দলকে চাঙ্গা করতে এই সম্মেলন বলেও মত দলের একাংশের।
তৃনমূল কংগ্রেসের হুগলি জেলা সভাপতি তপন দাশগুপ্ত বলেন,পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসাবে ফেব্রুয়ারি মাসের ১৫তারিখের মধ্যে প্রতিটি ব্লকে সম্মেলন করা হবে।কোন ব্লকের কোথায় সম্মেলন হবে ১৫জানুয়ারি উত্তরপাড়া গণভবনে জেলার পর্যবেক্ষক অরূপ বিশ্বাসের উপস্থিতিতে তা পরবর্তী কোর কমিটির বৈঠকে ঠিক করা হবে। হুগলি জেলার বিভিন্ন ব্লকে এই সম্মেলনকে ছড়িয়ে দিতে নতুন বছরে একাধিক বৈঠকে বসবে জেলা নেতৃত্ব।২৮জানুয়ারি উত্তরপাড়া ও জাঙ্গিপাড়া ব্লকের সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে । এবং তা ১৫ফেব্রুয়ারি খানাকুল ১ও২ -এর মাধ্যমে জেলার ১৮ টি ব্লকের সম্মেলন পর্ব শেষ হবে।
তৃনমূল শিবির জেলায় জেলায় প্রকাশ্য সভার পাশাপাশি গোষ্ঠী কোন্দল এড়াতে ও কর্মী -সমর্থকদের কাজ বুঝিয়ে দিতে এই সম্মেলন গুলিকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। কারণ ব্লক স্তর এই কর্মসূচি প্রতিটা জেলায় ছড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে তাঁরা যথেষ্ট আশাবাদী । ভোট ব্যাংকের একাংশ যাতে বিজেপির ঘরে না ঢোকে সেই জন্যই তড়িঘড়ি মাঠে নেমেছে জেলা তৃনমূল।এমনই মনে করছে অনেকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!