এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলেই ফিরছেন শোভন এমনটাই মনে করছেন বিজেপি নেতা, মন্তব্য করে বাড়ালেন জল্পনা

তৃণমূলেই ফিরছেন শোভন এমনটাই মনে করছেন বিজেপি নেতা, মন্তব্য করে বাড়ালেন জল্পনা

 

এক সময় তিনিও তৃণমূলের সাংসদ ছিলেন। লোকসভা ভোটের অনেক আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তবে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের আগে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের বাড়িতে গিয়ে তার হাজির হওয়াকে ঘিরে তীব্র জল্পনা ছড়ায়।

রাজনৈতিক মহলের একাংশ প্রশ্ন করতে শুরু করে, এবার হয়ত বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্যই অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে দেখা করলেন অনুপম হাজরা‌। তবে পরবর্তীতে সেই সমস্ত জল্পনাকে নিবৃত্ত করে বিজেপিতেই থেকে যান অনুপমবাবু।

তবে তিনি যেমন অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে দেখা করে বিতর্ক তৈরি করেছিলেন, ঠিক তেমনই তারই আরেক সতীর্থ তথা প্রাক্তন তৃণমূল নেতা এবং বর্তমান বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাড়িতে গিয়ে এবার প্রবল বিতর্ক বাড়িয়ে দিলেন। আর ভাইফোঁটার দিনে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যাওয়া নিয়ে তাঁর তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দিচ্ছেন একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এই গোটা ঘটনাটি সামাজিক ইস্যু বলে উল্লেখ করলেও, তা মানতে নারাজ প্রাক্তন তৃণমূল নেতা তথা বর্তমান বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যাওয়া নিয়ে এদিন তাদের তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনাকেই উসকে দেন অনুপম বাবু। তিনি বলেন, “বিজেপিতে যোগ দিয়েও শোভন চট্টোপাধ্যায় অমিত শাহের সভায় যান না। কিন্তু দিদি ডাকলেই পড়ি কি মরি করে ছোটেন ভাইফোঁটা নিতে। কেন তিনি এমন করছেন তা তারাই বলতে পারবেন, যারা তাকে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে এনেছিলেন।”

আর এরপরই প্রাক্তন এই তৃণমূল নেতা বলেন, “বিজেপিতে শোভনকে যেভাবে আপ্যায়ন করা হয়েছিল, তিনি হয়ত আরও বেশি আপ্যায়িত হতে চেয়েছিলেন। তাই এখন খুশি না হয়ে তিনি তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে ছোটাছুটি করছেন।” এদিকে এদিন নিজের দল বিজেপির একাংশকেও শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এই আচরণ নিয়ে কটাক্ষ করেন অনুপম হাজরা।

এই প্রসঙ্গে তার মন্তব্য, “শোভনবাবু বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের হাত ধরে বিজেপিতে এসেছিলেন। তিনি হয়তো কোনো শর্ত দিয়েই এসেছিলেন। কিন্তু সেই শর্ত হয়ত বা পূরণ হয়নি। তাই এখন ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাক পেয়ে তিনি হয়ত চলে গেলেন। তবে সত্যিই এটা কি না, তা অবশ্য পুরোপুরি বোঝা যাচ্ছে না। বিষয়টা বড্ড ঘোলাটে।”

আর শোভন চট্টোপাধ্যায় সম্পর্কে যখন বিজেপি নেতারা গোটা ঘটনাকে “সৌজন্য সাক্ষাৎ” বলে উল্লেখ করছেন, ঠিক তখনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এই সাক্ষাৎকার “তৃণমূলে ফিরে যাওয়া” বলেই দাবি করে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা বাড়িয়ে দিলেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। এখন অনুপম হাজরার এই কথা বাস্তবের সঙ্গে মিল খায় কিনা, সেদিকেই নজর গোটা রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!