এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের তৃনমূল – শোভন দূরত্ব, চলচিত্র উৎসবের শেষ দিনে দেখা মিললো না দিদির কাননের

ফের তৃনমূল – শোভন দূরত্ব, চলচিত্র উৎসবের শেষ দিনে দেখা মিললো না দিদির কাননের

 

নিজের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে ঘর করতে নারাজ তিনি। তৃণমূলে থাকার সময় সেই রত্নাদেবীর সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা রাজ্যের শাসক দলকে চরম সমস্যায় ফেলে দিয়েছিল। পরবর্তীতে তৃণমূল দল রত্নাদেবীর পাশে থাকলেও শোভন চট্টোপাধ্যায় বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে কার্যত অস্তাচলে চলে গিয়েছিলেন।

পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে, তৃণমূল রত্না চট্টোপাধ্যায়ের পাশে থাকায় বান্ধবীর অপমান তিনি সহ্য করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়ে মন্ত্রীপদ, মেয়রপদ ত্যাগ করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, দীর্ঘদিনের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সংসর্গ ত্যাগ করে 14 আগস্ট বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে বিজেপির পতাকা নিজের হাতে তুলে নেন শোভনবাবু।

তবে বিজেপিতে যোগদান করলেও সেইভাবে ময়দানে নামতে দেখা যায়নি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। সেখানেও বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে অপমান করা হচ্ছে বলে ঘনিষ্ঠমহলে উষ্মা প্রকাশ করেন রাজ্যের এই প্রাক্তন মন্ত্রী। আর এরই মাঝে ভাতৃদ্বিতীয়ার দিন হঠাৎ করেই প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে বাড়িতে চলে যান শোভন চট্টোপাধ্যায়। সাথে ছিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও। আর এই ঘটনা রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে প্রবল জল্পনা বাড়িয়ে দেয়।

অনেকেই দাবি করতে থাকেন, এবার হয়ত প্রাক্তন নেত্রীর বাড়িতে এসে তৃণমূলে ফেরার পথকেই প্রশস্ত করলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। এদিকে শোভনবাবু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ফোঁটা নিতে যাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন ঘটনা সেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলের ফেরার ব্যাপারে জল্পনা আরও বাড়িয়ে দেয়। যার মধ্যে অন্যতম কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে সেই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতি।

তবে কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনা উৎসবে শোভন চট্টোপাধ্যায় থাকলেও সমাপ্তি উৎসবে তাদের অনুপস্থিতি নিয়ে এখন প্রবল গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। জানা গেছে, স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চেয়েছিলেন যে, কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকুন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইমতো তাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত থাকায় অবশেষে সেই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকতে দেখা গেল শোভন চট্টোপাধ্যায়কে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলে যোগদানের ব্যাপারটি অনেকটাই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু রত্না চট্টোপাধ্যায়ের যে তৃণমূলে এখনও গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে, তা এদিনের চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে সেই রত্নাদেবীকে আমন্ত্রণ জানানো শোভনবাবুর মনোক্ষুন্নতা প্রকাশ পেল বলেই মত একাংশের।

আর তাইতো সেদিক থেকে তিনি এই চলচ্চিত্র উৎসবে অনুপস্থিত থেকে তৃণমূলের সাথে তার দূরত্ব বাড়িয়ে দিলেন বলেই দাবি বিশেষজ্ঞদের। আর এখানেই একাংশের প্রশ্ন, তাহলে কি বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা চলা স্ত্রী রত্ন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মূল বিবাদ? আর তার কারণেই কি তাকে তৃণমূল ছাড়তে হয়েছে! আর তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমন্ত্রণ জানালেও রত্না চট্টোপাধ্যায় সেই অনুষ্ঠানে আসছে জেনে সেখানে অনুপস্থিত থাকলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়!

এদিন এই প্রসঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে রত্না চট্টোপাধ্যায় যাচ্ছেন বলে জানতে পেরেছি। তাই আমরা যাচ্ছি না। প্রথমত, নীতিগতভাবে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে এক পংক্তিতে আমরা আসতে চাই না। আর দ্বিতীয়ত, আমরা চাই না কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হোক। তাই যাওয়ার ইচ্ছা থাকলেও এই অনুষ্ঠানে যেতে পারছি না।” ফলে চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এই অনুপস্থিতি তৃণমূলের সঙ্গে তার দূরত্বকে কি আরও নতুন করে বাড়িয়ে দিল! এখন এই প্রশ্নই ঘোরাফেরা করছে বিভিন্ন মহলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!