এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলের শহীদ সমাবেশের প্রচারে খামতি! উত্তরবঙ্গ থেকে জনসমাগম না হওয়ার আশঙ্কা

তৃণমূলের শহীদ সমাবেশের প্রচারে খামতি! উত্তরবঙ্গ থেকে জনসমাগম না হওয়ার আশঙ্কা

Priyo Bandhu Media


লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 42 এ 42 এর স্লোগান দিলেও তা পূরণ করতে পারেনি। উল্টে 22 টি আসন দখল করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তাদের। অন্যদিকে 18 টা আসন বিজেপি নিজেদের দখলে নিয়ে নিয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণবঙ্গ থেকে তৃণমূল 22 টা আসন নিলেও উত্তরবঙ্গ থেকে একটি আসনও তারা নিজেদের দখলে রাখতে পারেনি।

শুধু তাই নয়, লোকসভা নির্বাচনের পর উত্তরবঙ্গ থেকে তৃণমূলের ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। কিছুদিন আগেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি বিপ্লব মিত্রের হাত ধরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ বিজেপির দখলে এসেছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এছাড়াও উত্তরবঙ্গের একাধিক হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার বিজেপি যোগের জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে হাতে বাকি আর কয়েকটা দিন তৃণমূলের একুশে জুলাইয়ের সমাবেশ। আর এই সমাবেশই এখন প্রবল চিন্তা বাড়িয়েছে ঘাসফুল শিবিরের। কেননা অতীতে একুশে জুলাইয়ের সমাবেশকে সার্থক করতে জেলায় জেলায় আসতে দেখা যায় তৃণমূলের হেভিওয়েট শীর্ষ নেতাদের। কিন্তু এবার সেইভাবে কাউকে কোথাও আসতে দেখা যাচ্ছে না।

শহীদ সমাবেশের দু সপ্তাহ বাকি থাকলেও এখনও পর্যন্ত পাড়ায় পাড়ায় তৃণমূলের সেই প্রস্তুতিও চোখে পড়ছে না। বস্তুত, প্রতিবছর উত্তরবঙ্গ থেকে বিপুল কর্মী সমর্থক তৃণমূলের শহীদ সমাবেশে যান। কিন্তু সেদিক থেকে এবারের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের এই উত্তরবঙ্গে ভরাডুবি হলে উত্তরবঙ্গ থেকে লোক নিয়ে যেতে কতটা সক্ষম হবে শাসক দল! তা নিয়ে চিন্তার ভাঁজ পড়তে শুরু করেছে। এদিকে এদিনই তৃণমূল ভবনে দলীয় বিধায়কদের নিয়ে আগামী একুশে জুলাইয়ের প্রস্তুতি হিসেবে বৈঠক করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, এবার দক্ষিণবঙ্গের উপর ভরসা করেই তৃণমূলকে তার শহীদ সমাবেশের বৈতরণী পার হতে হবে। কেননা উত্তরবঙ্গে লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবি হওয়ার পর এখানে ঘাসফুল‌ শিবির কার্যত তলানিতে ঠেকেছে। ফলে সেদিক থেকে উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের নেতারা একুশে জুলাইয়ে ঠিক কতটা জনসমাগম করতে পারেন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!