এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নেত্রীর সভার সার্থকতা নিয়ে দলের অন্দরেই উঠছে প্রশ্ন

নেত্রীর সভার সার্থকতা নিয়ে দলের অন্দরেই উঠছে প্রশ্ন

পঞ্চায়েত ভোটের পূর্বে সব রাজনৈতিক দলই নিজেদের ঝুলি পূর্ণ হবার আশায় কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছে।নানান সভা সমাবেশে এবং প্রশাসনিক বৈঠকের মাধ্যমে জোর কদমে প্রচার চালাচ্ছে সব দল।এর মধ্যে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিদ্ধান্ত এইবার প্রত্যেক জেলার প্রশাসনিক বৈঠক তিনি না করে করবেন মুখ্যসচিব মলয় দে।তৃণমূল কর্ত্রীর এই সিদ্ধান্তে তৃণমূলের ভিতরেই শুরু হয়েছে নানান গুঞ্জন।শাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী অনুপস্থিত থাকলেও সরকারি পরিষেবা প্রদানকারী বিতরণ সভায় তিনি হাজির থাকবেন।
সোমবার অর্থাৎ ১১ ডিসেম্বর ,পরেরদিন মঙ্গলবার ১২ ডিসেম্বর,এবং১৩ ডিসেম্বর বুধবার সমাবেশ করবেন মুখ্যমন্ত্রী।প্রথমদিন আসানসোলে,দ্বিতীয় দিন পুরুলিয়ায়,আর তৃতীয়দিন বাঁকুড়াতে। প্রত্যেকটি সমাবেশ হবে বেলা ১ টা থেকে। আর প্রত্যেক জায়গায় মুখ্যমন্ত্রীর সমাবেশ শেষ হবার পর বেলা ৪ টা থেকে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন মুখ্যসচিব মলয় দে। সূত্রের খবর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুধবারে বাঁকুড়া শহরে থাকবেন কিন্তু মুখ্যসচিব মলয় দে ঐদিনই বৈঠক শেষে কলকাতায় ফিরে আসবেন।
মুখ্যসচিবের আহ্বান করা এই প্রশাসনিক আলোচনা সভায় পুলিশ অফিসাররা,কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী বা অধ্যক্ষরা উপস্থিত থাকবেন না।বিডিও থেকে শুরু করে প্রতিটি জেলা দফতরের অফিসাররা উপস্থিত থাকতে পারেন এই বৈঠকে।বিধায়ক বা জেলার মন্ত্রীদের এই বৈঠকে যোগ দেবার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।এই সভার সার্থকতা নিয়ে দলের মধ্যেই প্রশ্ন উঠছে.
আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!