এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > ভোটের বলি কি – “তৃণমূল করে বলে” অভিযুক্তরা অধরা, পুলিশের ভূমিকায় ক্ষোভ বাড়ছে বিরোধীদের

ভোটের বলি কি – “তৃণমূল করে বলে” অভিযুক্তরা অধরা, পুলিশের ভূমিকায় ক্ষোভ বাড়ছে বিরোধীদের



গত 23 এপ্রিল তৃতীয় দফার ভোটের দিন ভোটপর্ব শান্তিতে মিটলেও দিনের শেষে এক ব্যক্তির মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় মুর্শিদাবাদে। এদিন ভোট দিয়ে নাতনি ফুলসুরা খাতুনের সঙ্গে বাড়ি ফেরার পথেই খুন হতে হয় রানিতলা থানার বালিগ্রামের বাসিন্দা বৃদ্ধ টিয়ারুল শেখকে। আর এই টিয়ারুল শেখের মৃত্যুর পরেই সেই নিহত ব্যক্তিকে কংগ্রেস কর্মী বলে দাবি করে শাসকদলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তোলে হাত শিবির। কিন্তু এই খুনের ঘটনার পর তিন দিন কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত প্রকৃত অভিযুক্তরা গ্রেফতার না হওয়ায় পুলিশের ভূমিকায় নানা মহলে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

অভিযোগ, যে চারজন অভিযুক্ত রয়েছে তারা এলাকায় থাকলেও তাদের এখনও গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ। তবে শুধু টিয়ারুলই নয়, তার বড় ছেলে মহতাব শেখ এবং ভাইপো তথা তৃণমূল কর্মী তাহাজুল শেখও এই ঘটনায় জখম হন। বর্তমানে তাহাজুল শেখ মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি রয়েছেন।

এদিকে টিয়ারুল শেখের মৃত্যুর ঘটনার পরই সাতজনের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন সেই মৃতের স্ত্রী।এদিকে এই অভিযোগের ভিত্তিতে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও এখনও পর্যন্ত আরও চারজন অধরাই রয়েছে। আর গ্রেফতার হওয়া দুজনের মধ্যে লালু শেখের পাঁচ দিনের পুলিশ হেফাজত এবং বাকি দুজনের 14 দিনের জেল হেফাজত হয়েছে। তবে বাকি চারজন কেন এখনও গ্রেপ্তার হয়নি তা নিয়ে সরব হয়েছে মৃতের পরিবার।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে মৃত টিয়ারুল শেখের মেয়ে হিরা বিবি বলেন, “গ্রামে বাকি অভিযুক্তরা ঘুরাঘুরি করলেও ওরা শুধুমাত্র তৃণমূল বলেই ওদের পুলিশ ধরছে না।” অন্যদিকে অভিযুক্তরা এখনও গ্রেপ্তার না হওয়ায় তৃণমূল এবং পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন কংগ্রেস প্রার্থী আবু হেনাও।

তিনি বলেন, “প্রকৃত ঘটনাকে ঢাকা দিতেই এরকম গা ছাড়া দিচ্ছে পুলিশ।” অন্যদিকে একটা গ্রাম্য বিবাদের ঘটনাকে রাজনীতির রং লাগিয়ে কংগ্রেস এলাকায় সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করছে বলে জানান মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী আবু তাহের খান।আর এই নিয়েই তাদের দাবি যে অভিযুক্তরা তৃণমূল কর্মী বলেই তাদেরকে ধরছে না পুলিশ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!