এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃনমূল পরিচালিত পুরসভা কি এবার বিজেপির হবে? চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা জমা পড়ায় বাড়ছে জল্পনা

তৃনমূল পরিচালিত পুরসভা কি এবার বিজেপির হবে? চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা জমা পড়ায় বাড়ছে জল্পনা

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে যখন রাজ্যে পদ্ম ফোঁটাতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন বিজেপি নেতারা, ঠিক তখনই তৃণমূল পরিচালিত রাজ্যের রামজীবনপুর পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে রীতিমতো তাক লাগিয়ে দিল বিজেপি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, 11 আসন বিশিষ্ট এই রামজীবনপুর পৌরসভায় তৃণমূলের 7 জন, বিজেপির 1 জন এবং নির্দলের 3 জন কাউন্সিলর রয়েছেন।

জানা যায়, গতকাল এই পৌরসভার চার কাউন্সিলার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে একটি অনাস্থা প্রস্তাব এনে তা পুরসভার রিসিভিং কাউন্টারে জমা দেন। কিন্তু যেখানে বিজেপির একজন কাউন্সিলর সেখানে ঠিক চারজন কি করে এই অনাস্থা প্রস্তাবে সই করলেন? সূত্রের খবর, বিজেপি কাউন্সিলার গোবিন্দ মুখোপাধ্যায় সহ নির্দল কাউন্সিলর রিঙ্কু নিয়োগী, শিউলি সিংহ ভট্টাচার্য এবং মানসী চৌধুরীরও এই অনাস্থা প্রস্তাবে সই রয়েছে।

অভিযোগ, বিগত দুইদিন ধরে এই অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেওয়ার জন্য এই চার কাউন্সিলার মহকুমা শাসকের অফিস থেকে পুরসভায় ঘুরলেও তাদের অনাস্থা প্রস্তাব জমাই নেওয়া হয়নি। অবশেষে শুক্রবার পুরসভার রিসিভিং কাউন্টারে তা জমা দেন তারা। যদিওবা এই অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেওয়ার সময় নির্দলের তিন কাউন্সিলর না থাকলেও তাদের সই করা অনাস্থা প্রস্তাব পুরসভায় এদিন জমা দেন বিজেপি কাউন্সিলর গোবিন্দ মুখোপাধ্যায়।

কিন্তু হঠাৎ কেন পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এই অনাস্থা প্রস্তাব জমা দিলেন তারা? এদিন এ প্রসঙ্গে বিজেপি কাউন্সিলর গোবিন্দ মুখোপাধ্যায় বলেন, “রামজীবনপুর পুরসভার চেয়ারম্যানকে অবিলম্বে পরিবর্তন না করলে মানুষ প্রকৃত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হবেন।” কিন্তু চারজন কাউন্সিলারের সইয়ে তো তৃণমূলেরই এই চেয়ারম্যানকে সরানো যাবে না! এদিন এই প্রসঙ্গে সেই অনাস্থা প্রস্তাবের সই করা কাউন্সিলারদের মন্তব্য, “তৃণমূলের বেশ কয়েকজন কাউন্সিলরও আমাদের সঙ্গে রয়েছেন। অনাস্থা প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে ডাকা সভাতেই আমরা তা প্রমাণ করে দেবো।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে তার বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব প্রসঙ্গে এদিন এই রামজীবনপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্মল চৌধুরী বলেন, “আমার বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা পুরসভার রিসিভিং কাউন্টারে জমা দেওয়া হয়েছে বলে শুনেছি। এ নিয়ে আমার কোনো চিন্তা নেই। কারণ আমাদের দলের সাতজন কাউন্সিলারই আমার সঙ্গে রয়েছেন।”

একাংশের মতে, অনাস্থা জমা দেওয়ার 15 দিনের মধ্যে চেয়ারম্যানকে সভা ডেকে আস্থা ভোটে জয়লাভ করতে হবে। ফলে চারজন কাউন্সিলারের এই অনাস্থা প্রস্তাবের জেরে আস্থাভোটে আদৌ চেয়ারম্যান জেতেন কিনা এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!