এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার তৃণমূল পরিচালিত পুরসভায় “প্রোমোটার রাজের” অভিযোগ! শাসকদলের অস্বস্তি বাড়ছে

এবার তৃণমূল পরিচালিত পুরসভায় “প্রোমোটার রাজের” অভিযোগ! শাসকদলের অস্বস্তি বাড়ছে

ক্ষমতায় আসার পর বেআইনি প্রমোটার রাজ বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বিভিন্ন সময়ই সেই বেআইনি প্রোমোটার রাজের ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। এবার তৃণমূল পরিচালিত কোন্নগর পৌরসভার বিরুদ্ধে বহুতলের অনুমোদন দিয়ে বেআইনিভাবে প্রমোটার রাজ করার অভিযোগ উঠতে শুরু করল।

, সম্প্রতি এই পৌরসভার বিরুদ্ধে শাসকদলের একাংশ কাউন্সিলার মুখ্যমন্ত্রী এবং পুরমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছিলেন। যা নিয়ে তৃণমূলের অন্দরেই তীব্র চাপানউতোর শুরু হয়। আর এবার এই পৌরসভার 11 নম্বর ওয়ার্ডে 1 কাঠা জমির উপরে পাঁচতলা বিল্ডিং তৈরির অনুমোদন দেওয়া নিয়ে পুরসভার বিরুদ্ধে পোস্টার লাগাতে দেখা গেল বিজেপিকে। ফলে বিরোধী দলের তরফে এই ভাবে পুরসভার বিরুদ্ধে সরব হওয়ার ঘটনা ঘটলে তা নিয়ে কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছে ঘাসফুল শিবির।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে কোন্নগর মন্ডল বিজেপির সভাপতি সুভাষ গুহ বলেন, “শহরে পুরসভার তত্ত্বাবধানে প্রমোটার রাজ চলছে। আমজনতা সরকারি বাড়ি তৈরির জন্য এক কাঠা জমি দেখিয়ে অনুমোদন পায় না। অথচ বহুতল তৈরীর জন্য সেই এক কাঠা জমি দেখিয়েই অনুমোদন মিলছে।” তবে বিজেপির এই অভিযোগকে সম্পূর্ণরূপে উড়িয়ে দিয়েছেন কোন্নগর পৌরসভার চেয়ারম্যান বাপ্পাদিত্য চট্টোপাধ্যায়।

এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “এই পৌরসভা বেআইনি কাজ বরদাস্ত করে না‌। সোমবার অফিস খুললে ওই বিষয়ক পুরসভার অনুমোদনপত্র খতিয়ে দেখা হবে। যদি কোনো অসঙ্গতি ধরা পড়ে, তবে 24 ঘন্টার মধ্যে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” সব মিলিয়ে তৃণমূল পরিচালিত কোন্নগর পৌরসভায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রোমোটার রাজের অভিযোগ তুলে সরব হল বিজেপি।

আপনার মতামত জানান -
Top