এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের অস্বস্তি বহুগুণ বাড়িয়ে “বিপর্যয়ের” কারণ “ফাঁস” করে দিলেন হেভিওয়েট দলীয় সাংসদ

তৃণমূলের অস্বস্তি বহুগুণ বাড়িয়ে “বিপর্যয়ের” কারণ “ফাঁস” করে দিলেন হেভিওয়েট দলীয় সাংসদ

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সারা রাজ্য জুড়ে চষে বেরিয়ে বাংলা 42 টি লোকসভা আসনের মধ্যে 42 টা লোকসভা কেন্দ্রই দখল করার ডাক দিয়েছিলেন। কিন্তু তার সেই স্বপ্ন বাস্তবে পূর্ণ হয়নি। 42 টি তো দূর অস্ত, গত 2014 সালে তৃণমূল বাংলা থেকে 34 টা আসন দখল করলেও এবার তা থেকে কমে তাদের আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে 22 টিতে।

অন্যদিকে বিজেপি বাংলায় নিজেদের উত্থান ঘটিয়ে 18 টির মতো আসন নিজেদের ঝুলিতে পুড়েছে। আর তৃণমূলের এই খারাপ ফলাফলের পেছনে দলের নেতাদের অহংকার এবং জনসংযোগের ত্রুটিই যে বড় কারণ, তা বুঝতে পেরেছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর তাইতো ফলাফল পর্যালোচনা বৈঠকের পর জনপ্রতিনিধি থেকে নেতা, মন্ত্রী, বিধায়কদের আরও বেশি করে জনসংযোগে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জনপ্রতিনিধিদের জনসংযোগে পাঠালেও নেতাদের অহংকার নিয়ে প্রকাশ্যে কোনরূপ কোনো মন্তব্য করেননি। কিন্তু এবার দলীয় নেতাদের সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে দেখা গেল তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

সূত্রের খবর, এদিন কোলাঘাটের এক অনুষ্ঠানে অধিকারী পরিবারের এই তৃণমূল সাংসদ বলেন, “আমরা দেখেছি জায়গায় জায়গায় তৃণমূলের অনেক নেতার সঙ্গে জমির কোনো সম্পর্ক নেই। মানুষের সঙ্গে যে যোগাযোগ রাখা উচিত ছিল, তা রাখতে ব্যর্থ হয়েছিল অনেক স্থানীয় নেতৃত্ব। আর সেই কারণেই ভরাডুবি হয়েছে। দল চালাতে গিয়ে বিচ্যুতি নজরে এসেছিল। যারা দলে থেকে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন, তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করুন।”

অন্যদিকে বিজেপির বিরুদ্ধে বিষোদগার করে এদিনের সভা থেকে দিব্যেন্দু অধিকারী বলেন, “সিবিআই, ইডি দেখিয়ে তৃণমূলকে দমিয়ে রাখা যাবে না। আগামী 25 বছর রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় থাকবে।” সব মিলিয়ে এবার নিজের দলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করে শোরগোল তুলে দিলেন দিব্যেন্দু অধিকারি।

Top
error: Content is protected !!