এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দলীয় এই সংসদকে কি দল থেকে ছাঁটাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেলো ? জল্পনা তুঙ্গে

দলীয় এই সংসদকে কি দল থেকে ছাঁটাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেলো ? জল্পনা তুঙ্গে

দলীয় এই সংসদকে কি দল থেকে ছাঁটাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেলো ?
তাপস পাল এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সাথে দেখা করার আর্জি নিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন। কিছুটা গা ছাড়া ভাব নিয়ে পার্থবাবু জানান ওঁর আর্জি আমি নেত্রীর কাছে পৌঁছে দেব। আর তেমন কোনো রাজনৈতিক কথাবার্তা হয়নি বলেই খবর। এদিকে এই ব্যাপার নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তবে কি এবার তৃণমূল তাপস পালকে দল থেকে বার করতে চলেছে। আর তাই এই দূরত্ব রাজনৈতিকমহলে উঠছে প্রশ্ন ?। কেননা যেখানে সুদীপ বান্ধোপাধ্যায় জামিন পেয়ে আবার ফিরেছেন রাজনীতিতে সেখানে দল থেকে একপ্রকার ব্রাত্য হয়ে রয়েছেন তাপস পাল।

আরো নতুন খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সংসদ তাপস পাল রোজভ্যালি কাণ্ডে জেলে যাবার পর থেকে দল প্রায় একপ্রকার ব্রাত্য করে রেখেছে বলেই খবর। ওড়িশার জেলে বন্দি থাকাকালীন তাঁর সাথেই বন্দি ছিলেন তৃণমূলের আর এক নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।জেলে থাকাকালীন তাঁর সাথে দল সুসম্পর্ক বজায় রাখলেও তাপস পালের পরিবারের অভিযোগ ছিল দল তাঁর উপর বিমুখ।এরপর জামিনে ছাড়া পাবার পর সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ফের স্বমহিমায় রাজনীতিতে ফিরেছেন। কিন্তু জামিনে ছাড়া পাবার পর তাপস পালের সাথে দল রা যোগাযোগ রাখেন নি বলেই খবর। রাজ্যে ফিরলেও দলের জেলা বা রাজ্যস্তরের নেতৃত্ব তাঁকে এড়িয়ে গিয়েছেন। আগেও পার্থ চট্ট্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে স্ত্রী নন্দিনীর সাথে গিয়েছিলেন,ফোন করেছিলেন কিন্তু তেমন লাভ হয়নি। পাশাপাশি শোনা গেছে যে স্ত্রীকে নিয়ে দলের একাধিক শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা চালালেও ব্যর্থ হয়েছিলেন তাপসবাবু । এমনকী তাঁর জেলা নেতৃত্বও উপেক্ষা করে চলেছেন পাশাপাশি তাঁদের কাছে তাপসবাবুর বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তাঁরা বিরক্তি প্রকাশ করছেন বলেই খবর। এখন দেখার তাপসবাবুর সাথে মুখ্যমন্ত্রী দেখা করেন কিনা আর তার ফল কি হয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!