এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলীদের গায়ে হাত উঠলে তুলে নিয়ে গিয়ে শাস্তি দিয়ে ঠান্ডা করব! হুঁশিয়ারি তৃণমূল বিধায়কের

তৃণমূলীদের গায়ে হাত উঠলে তুলে নিয়ে গিয়ে শাস্তি দিয়ে ঠান্ডা করব! হুঁশিয়ারি তৃণমূল বিধায়কের

Priyo Bandhu Media


এতদিন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে বিরোধীদের উদ্দেশ্যে ধমক, চমক দিতে দেখা যেত। তবে উত্তরবঙ্গে কোনো তৃণমূল নেতাদের মধ্যে সেই দাপট লক্ষ্য করা যায়নি। তবে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর উত্তরবঙ্গের প্রায় সবকটি আসনেই ভারতীয় জনতা পার্টি জয়যুক্ত হলে তৃণমূল কর্মীরা কার্যত একঘরে হতে শুরু করে। আর তৃণমূল বনাম বিজেপির রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠতে শুরু করে কোচবিহার জেলা।

ফলে কোচবিহারের সবথেকে যে অঞ্চলে বেশি রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে, তা হল বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের গড় ভেটাগুড়ি এলাকায়। গত বৃহস্পতিবারও সেই এলাকায় বোমাবাজি হতে দেখা যায়। আর এই ভেটাগুড়ি এলাকা যেহেতু দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে, সেহেতু সেই এলাকার বিধায়ক তৃণমূলের উদয়ন গুহ। দীর্ঘদিন ধরে এই কেন্দ্রে অশান্তি সৃষ্টি হলে, তা নিয়ে শান্তি স্থাপনের আহ্বান জানিয়েছিলেন উদয়নবাবু।

তবে বৃহস্পতিবার ফের সেখানে বোমাবাজি হওয়ায় এবার ময়দানে নেমে বিজেপির কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিককে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দিলেন দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক। সূত্রের খবর, শুক্রবার ভেটাগুড়িতে দলীয় কর্মীদের নিয়ে একটি মিছিল এবং পরে একটি পথসভা করেন উদয়নবাবু। আর সেই পথসভা থেকেই বিজেপিকে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দেন তিনি। তৃণমূল কর্মীদের গায়ে হাত দিলে কি করে তাদের শাস্তি দিতে হয়, সেটা তিনি দেখিয়ে দেবেন বলেও জানিয়ে দেন এই হেভিওয়েট বিধায়ক।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

উদয়ন গুহ বলেন, “শুক্রবার রাতে ভেটাগুড়িতে দিনহাটার দুই তৃণমূল কর্মীকে আটকে রিভলবার দেখানো হয়েছে। যে রিভলভার দেখিয়েছে, সে দাগি আসামী। এখানে সাহেবগঞ্জ, দিনহাটা থানার পুলিশ আধিকারিকরা আছেন। ওই দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আছে। পুলিশ তাকে খুঁজে পায় না। ভেটাগুড়িতে রিভলবার হাতে দাপট দেখায়। আইসিসির, ওসিরা এবার আয়নায় নিজের মুখটা দেখবার চেষ্টা করুন। দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছেন, নাকি অশান্তিকে বাড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনারা ভূমিকা পালন করছেন, সেই দিকটা নজর রাখবেন।”

আর এরপরই রীতিমতো রাখঢাক না করে কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন, “ভেটাগুড়ির বাইরে গিয়ে ক্ষমতা দেখান। কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঘেরাটোপে থেকে নয়। আর আগের দিন নেই যে, তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নাম করে মানুষকে উস্কানি দেবেন। ভেটাগুড়ির বাইরে গিয়ে আপনার দাদাগিরি দেখানোর ক্ষমতা নেই। এরপর থেকে যদি কোনো তৃণমূল কর্মীর গায়ে হাত দেন, তাহলে প্রধান সহ তিনজনকেই তুলে নিয়ে গিয়ে কি করে শাস্তি দিতে হয়, সেটা দেখিয়ে দিয়ে ভেটাগুড়িকে ঠান্ডা করব।”

আর উদয়ন গুহর এই মন্তব্য নিয়েই এখন তৈরি হয়েছে বিতর্ক। পরোক্ষে কী তিনি বিরোধী দলের উদ্দেশ্যে হুঁশিয়ারি দিলেন না! জনপ্রতিনিধি হয়ে তার কি রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করা অপেক্ষা হুমকির পথ বেছে নেওয়া সাজে? এদিন এই ব্যাপারে উদয়ন গুহের মন্তব্যের পাল্টা কটাক্ষ করেছেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। তিনি বলেন, “এটা ওদের কালচার। এটা ওনারা করতে পারেন, সেটা আমরা জানি।” তবে অনুব্রত মণ্ডলের পর যেভাবে বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে শোরগোল তুলে দিলেন দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক, তাতে উত্তরবঙ্গেও রাজনৈতিক পারদ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!