এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার তৃণমূল বিধায়কদের ফেসবুক পেজেও নজর প্রশান্ত কিশোরের, বাড়ছে জল্পনা!

এবার তৃণমূল বিধায়কদের ফেসবুক পেজেও নজর প্রশান্ত কিশোরের, বাড়ছে জল্পনা!

তৃণমূলের সোশ্যাল মিডিয়া সেল থেকে বিজেপির সোশ্যাল মিডিয়া যে অনেক বেশি শক্তিশালী, তা অনেকদিন আগেই নিজের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই কারণে নিজের দলের সোশ্যাল মিডিয়া সেলকে শক্তিশালী করার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। ইতিমধ্যেই লোকসভা নির্বাচনে পর্যুদস্ত হয়ে তৃণমূলের সুদিন ফেরাতে দলের রণনীতিকার করা হয়েছে, বিশিষ্ট রণকৌশলী প্রশান্ত কিশোরকে। আর দায়িত্ব নেওয়ার পর যেমন তৃণমূলের ভাবমূর্তি ফেরানোর জন্য নানা জায়গায় দিদিকে বলো কর্মসূচি থেকে শুরু করে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।

এবার তৃণমূল বিধায়কের ফেসবুক পেজেও নজর দিতে শুরু করলেন প্রশান্ত কিশোর। কেননা বর্তমান সমাজে সোশ্যাল মিডিয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ‌। এককালে মানুষ একে অপরের সাথে গল্প করে সময় কাটালেও, এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় হয়ে গেছে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম। আর তাই সেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিধায়করা কতটা সক্রিয়, তা দেখে নিতে চাইছেন প্রশান্ত কিশোর।

জানা গেছে, এই ব্যাপারে সমীক্ষা করে তৃণমূল বিধায়কদের মধ্যে কে ফেসবুকে সব থেকে বেশি জনপ্রিয়, তার একটি তালিকা তৈরি করেছে প্রশান্ত কিশোরের টিম। যেখানে দেখা যাচ্ছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় অত্যন্ত জনপ্রিয় জায়গায় রয়েছেন, রাজ্যের মন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, শুভেন্দু অধিকারী, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ও আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি মত নেতারা।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কিন্তু কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূল নেতাদের জনপ্রিয়তা বিচার করা হচ্ছে! কিভাবে এই কাজ করছেন প্রশান্ত কিশোরের টিমের সদস্যরা! বিশেষ সূত্র মারফত খবর, কুড়ি হাজারের বেশি কোনো বিধায়কের পেজে লাইক থাকলে সেটাকে এক্সিলেন্ট মর্যাদা দেওয়া হচ্ছে। 10 হাজারের বেশি লাইক থাকলে ভেরি গুড, 5 হাজারের বেশি থাকলে গুড এবং দুই হাজারের বেশি লাইক থাকলে নট ব্যাড মর্যাদা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তৃণমূলের এত জন বিধায়কের মধ্যে এই চারটি বিভাগে মোট 33 জন বিধায়কের নাম উঠে এসেছে বলে খবর।

আর তার ফলেই একাংশ বলছেন যে, তৃণমূলের নেতারা এখনও পর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠিকমতো সরগর নন। কিন্তু কার পেজে কেমন লাইক পড়েছে! জানা গেছে, একদম প্রথম স্থানে থাকা লক্ষ্মীরতন শুক্লার পেজে লাইক পড়েছে 36 হাজার 712 টি, শুভেন্দু অধিকারীর 33,130 টি, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের 32 হাজার 463 টি, রবীন্দ্রনাথ ঘোষের 22,556 টি এবং জিতেন্দ্র তিওয়ারির 22,308 টি।

অন্যদিকে তৃণমূলের বেশকিছু বিধায়ক আছেন, যারা কিছুটা সাফল্যের দাগ কাটলেও তাদের পারফরম্যান্স খুব একটা সোশ্যাল সাইটে ভালো নয়। যার মধ্যে বিধায়ক তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়ের পেজে লাইক 7159 টি, রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের 2261 টি, মলয় ঘটকের 1910 টি, বিধান উপাধ্যায়ের 1202 টি নার্গিস বেগমের 1059 টি এবং অলোক কুমার মাঝির 1002 টি। আর এর নীচেও যে সমস্ত বিধায়করা রয়েছেন, তারা যে সোশ্যাল মিডিয়া একেবারেই করেন না, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত প্রশান্ত কিশোরের টিম।

ফলে সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূলের বিধায়করা এখনও পর্যন্ত ঠিকঠাক মত সরগর না হওয়ায়, প্রশান্ত কিশোরের এই রিপোর্ট যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানে পর্যন্ত যাবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত সকলেই। আর তারপর দলের যে সমস্ত বিধায়কদের সোশ্যাল মিডিয়ায় নিষ্ক্রিয়তা চোখে পড়েছে, সেই সমস্ত বিধায়কদের যে সেই ব্যাপারে বেশি মনোযোগী হতে হবে, তাতেও একপ্রকার নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা। এখন গোটা পরিস্থিতি কোন দিকে যায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!