এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার ‘মীর্জাফর’ তকমা জুটলো এই নেতার , জেনে নিন বিস্তারিত

এবার ‘মীর্জাফর’ তকমা জুটলো এই নেতার , জেনে নিন বিস্তারিত

থামার লক্ষণ তো নেই ই, উল্টে যত সময় যাচ্ছে চরম পর্যায়ে পৌঁছচ্ছে সব্যসাচী দত্ত ও তৃণমূল কংগ্রেসের সংঘাত।রাজনৈতিক মহলে জল্পনা মুকুল ঘনিষ্ট সব্যসাচীর বিজেপিতে যোগ দেওয়া এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। তার আগে দলের লাইন না মেনে চলা বিধাননগরের মেয়রের একের পর এক কাজ ও মন্তব্যে তীব্র বিড়ম্বনায় পড়ছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে সব্যসাচীকে সরাসরি ‘মীরজাফর’ বলে কটাক্ষ করলেন ফিরহাদ হাকিম।পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ , ”বিধাননগরের মেয়র দু’নৌকায় পা দিয়ে চলছে। এর প্রয়োজন নেই।”

গতকাল তপসিয়া রোডের তৃণমূল ভবনে পুর ও নাগরন্নোয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বৈঠকে বসেন বিধাননগর পৌরসভার কাউন্সিলরদের সঙ্গে।তৃণমূল সূত্রে জানা যাচ্ছে বৈঠকে উপস্থিত বিধাননগর পুরনিগমের অধিকাংশ কাউন্সিলরই সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে সরব ছিলেন। কাউন্সিলরদের বক্তব্য থেকে উঠে আসা সম্পূর্ণ তথ্য রিপোর্ট আকারে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম মমতা ব্যানার্জীর কাছে জমা করবেন। তারপরে, দলনেত্রীর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে সব্যসাচীর বিরুদ্ধে।এই মিটিং-এর পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ফিরহাদ হাকিমকে কিছু অস্বস্তিকর প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। সব্যসাচীর সঙ্গে মুকুল রায়ের ঘনিষ্টতা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ফিরহাদ বলেন, ”সব্যসাচী বেইমান। মিরজাফরদের দলে প্রয়োজন নেই।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

মিটিঙে অংশ নেওয়া কাউন্সিলররা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে জমা দেওয়া রিপোর্টে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে।সোমবার মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এই প্রসঙ্গে বলেন, ”সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা বলেছি। পার্টিতে থেকে বাজে কাজ সহ্য করা হবে না।” সূত্রের খবর সেই রিপোর্ট অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রী সব্যসাচীকে বিধাননগর পুরসভার চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে যেতে বলতে পারেন। এরপরেও , নেত্রীর নির্দেশ অমান্য করে সব্যসাচী নিজে পদ আঁকড়ে থাকলে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা আনবেন দলের কাউন্সিলররা।

যদিও নিজের বিরুদ্ধে অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে সব্যসাচীর বক্তব্য মুকুল রায় তাঁর কাছে শুধুমাত্র একজন বিজেপি নেতা নন, মুকুল বাবুর সঙ্গে সব্যসাচীর পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে। এছাড়া তিনি রাজনৈতিক সোজন্যতার উদাহরণ দিতে মমতা বানিরয্যের তরফ থেকে নরেন্দ্র মোদিকে কুর্তা ও মিষ্টি পাঠানোর প্রসঙ্গ ও টেনে আনেন। পাশাপাশি তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান যে দোল তাঁর বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নিচ্ছে সে ব্যাপারে তিনি ওয়াকিবহাল নন।তাঁর সঙ্গে দল কোনও বিষয় নিয়েই সোমবার সকালে যোগাযোগ করেননি বলে দাবি করেন বিধাননগরের মেয়র।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!