এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > তৃণমূল বিধায়ককে ভদ্রলোক বললেন বিমান বসু,- কাকে ,কেন বললেন ? জেনে নিন বিস্তারিত

তৃণমূল বিধায়ককে ভদ্রলোক বললেন বিমান বসু,- কাকে ,কেন বললেন ? জেনে নিন বিস্তারিত

লোকসভা ভোটের আগে জল্পনা বাড়িয়ে বামেদের গলায় উল্টো সুর! বামফন্ট-তৃণমূল একে অপরের কট্টর দুশমন একথা অজানা নেই রাজনীতি সচেতন মানুষের। টানা ৩৪ বছরের বাম শাসনের ইতি টেনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন ক্ষমতায় এলেন তখন তাঁর গলায় ছিল বাম বিরোধী সুর প্রবল ছিল। বামেরাও একইভাবে তৃণমূল বিরোধীতাতেই সরব হয়েছে বরাবরই।

বামেরা এতোটাই মমতা-বিদ্বেষী যে আসন্ন লোকসভা ভোট ক্ষয়িষ্ণু সংগঠন নিয়ে একা লড়তে রাজি হলেও তৃণমূলের হাত ধরতে কখনোই রাজি নন আলিমুদ্দিন স্ট্রীটের কর্তারা। সেই বামফ্রন্টের হেভিওয়েট রাজ্য নেতৃত্বের মুখে যদি তৃণমূলের সুনাম গাইতে শোনা যায় তাহলে চোখ কপালে ওঠাটাই স্বাভাবিক আর এবার সেই ঘটানোই ঘটলো।

বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক তথা প্রভাবশালী তৃণমূল নেতা রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করতে দেখা গেল বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুকে। বললেন,”উনি যে ভদ্রলোক তা প্রমাণ করে দিলেন।” কেন হঠাৎ করে বিমান বাবুর গলায় তৃণমূল নেতার প্রশংসা শোনা গেল আসুন জেনে নেওয়া যাক।

প্রাক্তন শিল্প ও বানিজ্যমন্ত্রী নিরুপম সেন সম্প্রতি গত হয়েছেন। তাকেই শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গতকাল বর্ধমানের জেলা পার্টি অফিসে আসেন বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়। বাম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র এবং বিমান বসুদের সঙ্গে এ প্রসঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ বার্তালাপও করেন তিনি।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আসলে গতকাল নিরুপম সেনের মরদেহ বর্ধমানে আনা হলে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে জমায়েত হন সিপিআইএম নেতারা। বিজেপির পক্ষ থেকেও অনেকেই এসেছিলেন জনপ্রিয় এই বামনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে। কিন্তু রবিরঞ্জন বাবু ছাড়া তৃণমূলের কোনো নেতা-মন্ত্রীকে সেখানে আসতে দেখা যায়নি। এজন্যে তৃণমূলের সৌজন্যবোধ নিয়েও প্রশ্ন ওঠে রাজনৈতিকমহলে।

তবে প্রয়াত নিরুপম সেনকে শ্রদ্ধা জানাতে এসে রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায় জানান, নিরুপম সেন তাঁর থেকে বয়সে ছোট হলেও তিনি যথেষ্ট শ্রদ্ধার পাত্র। রবিরঞ্জন বাবু সিপিএম-এর একজন উঁচুদরের নেতা হওয়ার পাশাপাশি তাত্ত্বিক,যুক্তিবাদী এবং স্বল্পভাষীও ছিলেন৷ সেজন্যে তাঁকে শ্রদ্ধা জানিয়ে গেলেন তিনি, এমনটাই সংবাদমাধ্যমকে জানান রবিরঞ্জন বাবু।

এই তৃণমূল নেতার সৌজন্যবোধ আর ভদ্র আচরণই মুগ্ধ করল বর্ষীয়ান বাম নেতা বিমান বসুকে। তাই এ প্রসঙ্গে তিনি বললেন, “সভ্যতা, ভদ্রতা এটা তো বাজারে কিনতে পাওয়া যায় না। কাউকে যদি বলা হয় বাজার থেকে সভ্যতা কিনে নিয়ে আয় ৫০০ কেজি, সৌজন্যতা কিনে নিয়ে আয় ৫০০ কেজি, এটা তো হয় না। কিংবা, যা ভালো ব্যবহার কিনে নিয়ে আয়। ওটা মানুষের মজ্জায় থাকে। যার থাকে তার বহিঃপ্রকাশ ঘটে আর যার থাকে না মৃত্যু পর্যন্ত তার বহিঃপ্রকাশ ঘটে না। উনি ভদ্রলোক এটা প্রমাণ করলেন।” যাইহোক, বামফ্রন্টের গলায় তৃণমূলের প্রশংসা এই হিংসা,আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের রাজনীতির অঙ্গনে সত্যিই বেনজির বলেই মনে করছেন ওয়াকিবহালমহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!